চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘নবাব’ অর্ধেক মুক্তি: ক্ষুব্ধ শাকিব বললেন, ‘সিনেমা ধ্বংসের ষড়যন্ত্র’

অনেক হাঁকডাকের পর বিজয় দিবসের রাতে দেশীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আই থিয়েটারে মুক্তি পেয়েছে প্রতীক্ষিত সিনেমা ‘নবাব এলএল.বি’। অনন্য মামুন পরিচালিত এ সিনেমাটি মুক্তির আগে থেকে আলোচনার টেবিলে থাকলেও মুক্তির ঠিক পরেই হিতে বিপরীতে হয়েছে!

সিনেমার পুরো টিকেটের মূল্য ৯৯ টাকা নিয়ে অ্যাপে অর্ধেক সিনেমা মুক্তি দেয়ায় দর্শকরা প্রতারণার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করছেন। এমনকি সিনেমাটির প্রাণ-ভোমরা শাকিব খানও বিষয়টি জানার পর ভীষণ চটেছেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

অনেক দর্শক মুখিয়ে ছিলেন দেশীয় ওটিটিতে দেশ সেরা চিত্রতারকা শাকিব খানের সিনেমা দেখবেন। এমনকি প্রবাসী হাজারও দর্শক অপেক্ষায় ছিলেন একযোগে দেশে মুক্তির সঙ্গে সঙ্গে ওটিটিতেও ছবি দেখবেন। তবে তারা হতাশ হয়েছেন। কেউ কেউ আবার অভিযোগ করে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন যে, টিকেট কেটেও সিনেমাটি দেখতে পারেননি। শাকিব খান অফিশিয়াল ফ্যান ক্লাব এবং সিনেমার চলচ্চিত্র বান্ধব গ্রুপগুলোতে চোখ বুলিয়ে দেখা যায়, অর্ধেক সিনেমা মুক্তি দেয়ায় দর্শকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

অর্ধেক সিনেমা মুক্তির বিষয়টি নিয়ে পরিচালক অনন্য মামুন অবশ্য তার খোঁড়া যুক্তি দিয়ে চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, পুরো টাকা নিয়ে অর্ধেক সিনেমা দিচ্ছি না। একই টাকায় পহেলা জানুয়ারি দ্বিতীয় অংশ দেখতে পাবেন দর্শক। পরিচালক বলেন, যেহেতু সিনেমার লেন্থ লম্বা তাই দুই অংশে দেখাচ্ছি। একবারে পুরোটা দেখলেই দর্শক বোরিং হতে যাবে। তাই দুই অংশে ভাগ করেছি।

তবে নেট দুনিয়ার বেশিরভাগ দর্শক তাদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ এনে পরিচালক-প্রযোজকদের উপ ভোক্তা অধিকার আইনে মামলার ইঙ্গিত দিয়েছেন। অনেকেই আবার ‘নবাব এলএল.বি’ দুই খণ্ডে মুক্তির বিষয়টি আগে প্রচার না করায় ‘ওয়েব সিরিজ’ বলে ট্রল করছেন। চলচ্চিত্র বান্ধব গ্রুপগুলো এবং আই থিয়েটারের পেজে এমন শতশত মন্তব্য ঘুরে ঘুরে ফিরেই নজরে আসছে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অর্ধেক সিনেমা মুক্তি বিষয়টি নিয়ে চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে ক্ষোভ প্রকাশ করে শাকিব খান বলেন, এটি এক প্রকার প্রতারণা ও বাটপারি। যে বা যারা এ কাজটি করেছে প্রত্যেকেই দর্শকদের সঙ্গে চরম প্রতারণা করেছে। এসব কারণেই ইন্ডাস্ট্রি আজ ধ্বংসের কিনারায় পৌঁছেছে। অর্ধেক সিনেমা মুক্তি দিয়ে পরে বাকি অর্ধেক দিয়ে যদি তারা মার্কেটিং করতে চায় তাহলে চরম ভুল করবে। কোনোদিনই ওই প্ল্যাটফর্ম দর্শক গ্রহণ করবে না। বরং মুখ ফিরিয়ে নেবে।

অর্ধেক সিনেমা মুক্তিতে ‘সিনেমা ধ্বংসের ষড়যন্ত্র’ বলে উল্লেখ করেন শাকিব খান। তিনি বলেন, আমার কাজ তো আমি ঠিকমত শেষ করে দিয়েছি। অন্যরাও ঠিকভাবে তাদের কাজ শেষ করে দিয়েছে। প্রযোজক যদি দুষ্টু লোকের পরামর্শে অর্ধেক সিনেমা মুক্তি দেয় তাহলে শিল্পী হিসেবে আমার করার কী আছে? তবে মোটেও অর্ধেক সিনেমা মুক্তি দেয়া সমর্থন করি না। এর ফলে মানুষ দেশের ওটিটি থেকে যে একবার মুখ ফিরিয়ে নিল। তাদের ফেরানো মুশকিল হয়ে যাবে। তারা আবার ভিনদেশী ওটিটির দিকে ঝুঁকে যাবে। এমনকি শুনলাম ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যমে সিনেমাটি নাকি পাইরেসিও হয়ে গেছে।

শাকিব খান মনে করেন, নতুন করে ‘নবাব এলএল.বি’ দর্শকরা আর টিকেট কেটে এই ছবি দেখতে চাইবে না। কারণ, কোনো দর্শকই চায় না তার মাথায় কাঁঠাল ভেঙে অন্যজন খাক। এমনকি প্রতারণার শিকার হতে চাইবেন না কিংবা দুই নাম্বারিকে সমর্থন করবে না। সুস্থ, সুন্দরভাবে আমিও চেয়েছিলেন সিনেমাটি ওটিটিতে চলুক, সিনেমা হলেও মুক্তি দেয়া হোক। কিন্তু শুরুতেই যে গলদ বাঁধল, এখান থেকে আমার কাছে বেশি কিছু চাওয়ার নেই। তবে বলতে চাই, দর্শক যেন প্রতারিত না হয়।

চাপা কণ্ঠে ক্ষোভে শাকিব খান বলেন, করোনায় শত সীমাবদ্ধতার মধ্যেও, আশপাশের মানুষগুলোর কাজে ফিরতে চায় দেয়, পরিচালক-প্রযোজকের অনুরোধ সবকিছু ভেবে নিজে ঝুঁকি নিয়ে সমকালীন সংকট নিয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে গেছি, দারুণ একটি সিনেমা উপহার দিতে। আর এভাবেই তার প্রতিদান দেয়া হলো! কাজটি দেখতে গিয়ে কেউ প্রতারিক হোক তা আমি চাইনা।

‘নবাব এল.এল.বি’র নির্মাতা অনন্য মামুনের সঙ্গে মাহিয়া মাহি

শুধু শাকিব খান নয়, এর আগে চ্যানেল আই অনলাইনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে মাহিয়া মাহিও পরিচালক অনন্য মামুনের উপর বিরক্তি প্রকাশ করে বলেছিলেন, পরিচালক তার দেয়া কথা রাখেনি। বরং অপেশাদার আচারণ করেছেন। ‘নবাব এলএল.বি’ অর্ধেক মুক্তি প্রসঙ্গে মাহি বলেন, সিনেমা থেকে আমার একটি গান ফেলে দেয়া হয়েছে যেটা নির্মাণের শুরুতে পরিকল্পনায় ছিল। আমি তো আগেই প্রতারণার শিকার হয়েছি, এবার দর্শকরাও হলো।