চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘দোলা রে’ গানের শুটিং শেষ করতে লেগেছিল ১৬ দিন!

এক ফ্রেমে মাধুরী-ঐশ্বরিয়া। তাদের হৃদয় হরণ করা নাচ আর শ্রেয়া ঘোষাল ও কবিতা কৃষ্ণমূর্তির অসাধারণ গায়কী। সব মিলিয়ে ‘দেবদাস’ সিনেমার ‘দোলা রে’ গানটি শ্রোতাদের কাছে আজও সজীব।

অথচ এই গানটি শুটিং করতে হিমশিম খেতে হয়েছিল সঞ্জয় লীলা বানসালিকে। ১৬ দিনে শেষ হয়েছিল গানের শুটিং!

বিজ্ঞাপন

গানটির কোরিওগ্রাফি করেছিলেন প্রয়াত সরোজ খান। এক সাক্ষাতকারে সরোজ খানের ভাই সুরেশ দোলারে গানটি সম্পর্কে জানান, ‘ঐশ্বরিয়া ও মাধুরী দুজনে একসঙ্গে নাচতে আপত্তি করেননি। তবে হ্যাঁ, ১৬ দিন লেগেছিল ‘দোলা রে’ গানের শুটিং শেষ।’

সুরেশ জানান, এই গানের দায়িত্ব সঞ্জয় লীলা বানসালি চোখ বন্ধ করে সরোজ খানের হাতে ছেড়ে দিয়েছিলেন। কাজ শেষ হওয়ার পর খুঁতখুঁতে বানসালির বেশ পছন্দ হয়েছিল সরোজের কাজ।

দেরী হয়েছিল কেন? উত্তরে সুরেশ বলেন, “ভারতের দুই সেরা নৃত্যশিল্পী- মাধুরী ও ঐশ্বরিয়া এক গানে। তাই কখনও তাদের নাচের অমিল হয়ে যেত। আমার বোন নিখুঁত চাইতেন, তাই ভুলগুলো গ্রহণ করতে পারতেন না। একবার বলেছিলেন, ‘চলবে, কিন্তু দর্শক দেখবে না।’ আমাকে বলেছিলেন, ‘যেহেতু আমি দেখতে পারছি, দর্শকের চোখেও পড়বে।’ মাধুরী ও ঐশ্বরিয়ার সমন্বয় এত সহজ ছিল না। তার ওপর এটি সরোজ খান ও সঞ্জয় লীলা বানসালির কাজ।”

তিনি জানান, শুটিং-এর সময় পুরো টিমই বুঝতে পারছিল যে মনে রাখার মতো একটি গান হতে যাচ্ছে ‘দোলা রে।’ গানটি প্রকাশ পাওয়ার পর দর্শক মুগ্ধ হয়েছে।

‘দোলা রে’ গানের জন্য সরোজ খান অষ্টমবারের মতো সেরা কোরিওগ্রাফার হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতেছিলেন।

বিজ্ঞাপন