চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দুর্দান্ত শুরুর পর দুভার্গ্যজনক সমাপ্তি

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশের পেসারদের তোপে ৩১ রানে নেই ৩ উইকেট। কঠিন অবস্থায় দলের হাল ধরলেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। মিরপুরের ২২ গজে লড়লেন দুর্দান্ত। সেঞ্চুরির খুব কাছে গিয়ে হলেন রান আউট। প্যাভিলিয়েনে ফেরার আগে এ তরুণের নামের পাশে ১০৮ বলে ৯৮ রান। মাত্র ২ রানের জন্য হলেন সেঞ্চুরি বঞ্চিত।

১২ চার ও এক ছয়ের আফিফের অসাধারণ ইনিংসটি নাজমুল হোসেন শান্ত একদশকে এনে দিয়েছে ২৬৪ লড়াকু পুঁজি। বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে এটিই সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

বিজ্ঞাপন

শুরুতেই দল ব্যাকফুটে চলে যাওয়ায় আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান মুশফিকুর রহিম খেলেন ধীরলয়ে। ১ রান জীবন পাওয়া এ ব্যাটসম্যান আউট হন ফিফটি পেরিয়ে। ৯২ বলে ৫২ রানের ইনিংসে চারের মার মোটে একটি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আফিফ ও মুশফিক চতুর্থ উইকেট জুটিতে আগে ১৪৭ রান। তাতেই দলীয় সংগ্রহ আড়াইশর দিকে অগ্রসর হয়।

স্লগে ক্যামিও ইনিংস খেলেন ইরফান শুক্কুর। ২৮ বলে ৪৫ রান করে থাকেন অপরাজিত। এ বাঁহাতির ব্যাটে আসে ৪টি চার ও ২ ছক্কা। তৌহিদ হৃদয় ২৯ বলে দুই বাউন্ডারিতে করেন ২৭ রান।

শুরুর বিপর্যয়ের পরও ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৬৪ রান ‍তুলেছে শান্ত একাদশ।

রুবেল হোসেন নিয়েছেন তিন উইকট। ইবাদত হোসেন দুটি ও ‍সুমন খান নেন একটি উইকেট।