চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দামেও কম আইফোন ১১

শেষ পর্যন্ত দেখা মিললো বহুল আলোচিত আইফোন ১১। সাথে এই সিরিজেরে আরো দুটি মডেল আইফোন ১১ প্রো এবং আইফোন ১১ ম্যাক্স উন্মোচন করেছে টেক জায়ান্ট অ্যাপল। তবে এখনই তা বাজারে পাওয়া যাবে না। আগামী ২০ সেপ্টেম্বর বাজারে আসবে আইফোনের নতুন মডেলগুলো।

বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায় যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার কুপারটিনোর অ্যাপল পার্কের স্টিভ জবস অডিটোরিয়ামে উন্মুক্ত করা হয় আইফোন ১১। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী টিম কুক তুলে ধরেন নতুন আইফোনের বিশেষত্ব।

বিজ্ঞাপন

আইফোন ১১ পাওয়া যাবে ৬টি রঙে। ধুলো ও পানিরোধী ফোনটিতে রয়েছে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চির সুপার রেটিনা এক্সডিআর ডিসপ্লে। পেছনে থাকছে ট্রিপল ক্যামেরা। রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেলের একটি ওয়াইড লেন্স, একটি আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং একটি ১২ টেলিফটো লেন্স।

ফোরকে রেজুলেশনের ভিডিও রেকর্ডিং সাপোর্ট করবে এই লেন্স। নতুন ক্যামেরা ফিচার ‘ডিপ ফিউশন’ ছবি তোলার বাটনে চাপ দেওয়ার আগেই ৮টি ছবি তুলবে। ছবি আরও নিখুঁত হবে।

বিজ্ঞাপন

এবারের আইফোনে যুক্ত করা হয়েছে কুইকটেক ফিচার এর জনপ্রিয় ‘পোর্ট্রেট মোড’ যা কাজ করবে পশু-পাখিদের ক্ষেত্রেও। সবগুলো ফোনেই ব্যবহার করা হয়েছে চিপসেট এ-থার্টিন বায়োনিক। নতুন ফোনগুলোর ব্যাটারি আগের ফোনের তুলনায় দীর্ঘস্থায়ী হবে জানিয়েছে অ্যাপল।

আইফোন ১১ এর দাম রাখা হয়েছে ৬৯৯ ডলার, ১১ প্রো’র ৯৯৯ ডলার এবং ১১ প্রো ম্যাক্সের দাম ১ হাজার ৯৯ ডলার। আগামী শুক্রবার থেকে ফোনগুলোর প্রি-অর্ডার শুরু হবে। যা অ্যাপল স্টোরে পাওয়া ২০ সেপ্টেম্বর থেকে।

ফোনের সঙ্গে অ্যাপল ওয়াচের নতুন সিরিজ ফাইভ এবং সপ্তম জেনারেশনের আইপ্যাড উন্মুক্ত করা হয়। নতুন ওয়াচে রেটিনা ডিসপ্লে সংযোজন করা হয়েছে। যুক্ত করা হয়েছে বিল্ট-ইন কম্পাস।

জিপিএস মডেলের ওয়াচের দাম পড়বে ৩৯৯ ডলার। সপ্তম জেনারেশনের আইপ্যাডে রয়েছে ১০.২ ইঞ্চির রেটিনা ডিসপ্লে। ডিভাইসটিতে ব্যবহার করা হয়েছে এ-টেন ফিউশন চিপসেট।

নতুন আইপ্যাডের পড়বে ৩২৯ ডলার। এছাড়া অনুষ্ঠানে অ্যাপল টিভি প্লাসস উন্মুক্ত করা হয়। যা ১ নভেম্বর থেকে বিশ্বের ১০০টি দেশের মানুষ দেখতে পারবেন।

Bellow Post-Green View