চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দর্শকরা বলছেন, ঈদের সেরা নাটক ‘চম্পা হাউজ’

টেলিভিশন এবং সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম মিলিয়ে এবার ঈদ প্রচার হয়েছে কয়েক’শ নাটক। যার বেশীরভাগই রোমান্টিক-কমেডি অবথা ট্রেন্ডি গল্পের। তবে এসবের ভিড়ে ব্যতিক্রমী কিছু কাজও চোখে পড়েছে। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় নির্মাতা ভিকি জাহেদের পরিচালনায় নির্মিত ‘চম্পা হাউজ’।

চ্যানেল আইয়ের পর্দায় ঈদে প্রচার হওয়া ‘চম্পা হাউজ’ পাওয়া যাচ্ছে ‘চ্যানেল আই প্রাইম’ ইউটিউব চ্যানেলে। উন্মুক্তের সাতদিনের মধ্যে নাটকটি ইউটিউব থেকে দেখেছেন ৩২ লাখের বেশি দর্শক। ক্ষণে ক্ষণে বাড়ছে ভিউ। ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন হাজার হাজার দর্শক।

Reneta June

এতে গুরুত্বপূর্ণ তিন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাসুম আজিজ, আফরান নিশো ও মেহজাবিন চৌধুরী। গল্পে দেখা যায়, রাজধানীর পুরান ঢাকার নারিন্দা এলাকায় একটি বাড়িতে দুই সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে বসবাস করেন অবসারপ্রাপ্ত এক ব্যাংক কর্মকর্তা। বাড়িটি কেনার দু’মাস পর থেকে পুরো পরিবার ভয়াবহ ভৌতিক এক অবস্থার মুখোমুখি হতে থাকে।

বিজ্ঞাপন

সেই সমস্যা সমাধানের জন্য বাড়ির কর্তা একজন সাইক্রেটিস্টকে ডাকেন। তিনিও সেই ভয়াবহ অবস্থার মুখোমুখি হন। তবে নাটকের শেষটি ছিল টুইস্টে ভরা! পুরো নাটকে ভৌতিক ধাঁচের মিউজিক কাজটিকে অন্যরকম মাত্রা যোগ করেছে। যা দেখে অনেক দর্শক ভয় পেতে বাধ্য!

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘চম্পা হাউজ’-এর প্রশংসায় ভাসছে সংশ্লিষ্ঠরা। ভৌতিক থ্রিলার ধাঁচের নাটকটি দেখে বেশীরভাগ দর্শকের শরীরের লোম দাঁড়িয়ে যায়, পাশাপাশি তারা উপভোগও করছেন বলে জানাচ্ছেন। তবে নাটকের ঠিক শেষে বরাবরের মতো ঠিকই টুইস্ট দিয়ে নিজের নির্মাণ মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন ‘পুনর্জন্ম’ খ্যাত ভিকি জাহেদ।

ইউটিউব থেকে দেখে হাজার হাজার দর্শকের মন্তব্যের ছিল এমন, ‘ঈদের সেরা নাটকগুলোর মধ্যে একটি ‘চম্পা হাউজ’।’

জাফিকুল ইসলাম নামে একজন লিখেছেন, বাংলাদেশে ভূতের নাটক অসম্ভব! কিন্তু ‘চম্পা হাউজ’ ১০ মিনিট দেখার পর লাইট জ্বালিয়ে দিলাম। শরীরের লোম দাঁড়িয়ে গেছে। কলকাতা থেকেও বহু দর্শক এ নাটকটি দেখে তাদের মতামত দিয়েছেন।

রাজীব গায়েন নামের একজন লিখেছেন, আমি বুক ফুলিয়ে একটা কথা বলতে পারি, আমাদের কলকাতা তে এ রকম সচরাচর ভূতের নাটক কিংবা মুভির দেখা যায় না। নাটকের সবাইকে ভারত থেকে ভালোবাসা পাঠালাম।

আরেক দর্শক ফারজানা আক্তার মেঘলা লিখেছেন, ও মাই গড, শেষটা কি চমৎকার হয়েছে! প্রতিটি ভৌতিক দৃশ্য দেখে অসম্ভব ভয় পেয়েছি। বাংলা নাটক দেখেও এত ভয় পাওয়া যায় সেটা অসম্ভব ভাবনা ছিলো। সত্যিই অসাধারণ সৃষ্টি। দর্শকদের প্রশংসায় ভাসানো এমন সাত হাজার মন্তব্য দেখা যাচ্ছে ইউটিউবে।

এছাড়া নাটক বান্ধব ফেসবুক গ্রুপগুলোতেও ‘চম্পা হাউজ’ নিয়ে দর্শক তাদের ইতিবাচক অনুভূতি জানাচ্ছেন।

দুর্দান্ত ডার্ক থ্রিলার ‘চম্পা হাউজ’ নির্মাণের জন্য চ্যানেল আই কর্তৃপক্ষ থেকে শিল্পী ও নির্মাতাসহ সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছেন দর্শক। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, ‘চম্পা হাউজ’ দর্শকের প্রত্যাশা পুরোপুরি পূরণ হয়েছে বলেই হয়তো দর্শক এর ‘পার্ট ২’ দেখার ইচ্ছে জানিয়ে মন্তব্য করছেন।