চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তারকা, তবুও অধরা অস্কার!

অস্কারে কে পাচ্ছে সেরা অভিনেতা কিংবা অভিনেত্রীর পুরস্কার, সেদিকে থাকে সিনেমাপ্রেমীদের নজর। প্রিয় তারকার হাতে অস্কার দেখার প্রতীক্ষায় দিন গুনতে থাকেন ভক্তরা। কিছু তারকা আছেন যারা বিশ্বব্যাপী তারকাখ্যাতি পেলেও অস্কার রয়ে গেছে অধরা। আসছে ২৫ এপ্রিল অস্কার প্রদান অনুষ্ঠানকে সামনে রেখে তেমনই দশ জনপ্রিয় তারকার কথা থাকলো এখানে, যাদের ক্যারিয়ারে অসংখ্য প্রশংসিত ছবি থাকলেও কখনও অস্কার জিততে পারেননি:

স্যামুয়েল এল জ্যাকসন: ১৮২টির বেশি চরিত্রে অভিনয় করেছেন স্যামুয়েল এল জ্যাকসন। তবে কখনও জিততে পারেননি অস্কার। মনোনয়ন পেয়েছেন মাত্র একবার!

রবার্ট ডাউনি জুনিয়র: রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের মতো সুপারস্টারও কখনও জেতেননি অস্কার। ৯০টির বেশি চরিত্রে অভিনয় করে মাত্র দুইবার মনোনয়ন পেয়েছেন এই অভিনেতা!

জনি ডেপ: কিছু চরিত্রে জনি ডেপকে ছাড়া ভাবাই যায় না। অসাধারণ অভিনয় নৈপুণ্যে এই অভিনেতা ভক্তদের হৃদয়ে পাকাপোক্ত আসন গড়ে নিয়েছেন। তিনবার অস্কারে মনোনয়ন পেয়েছেন। তবুও জোটেনি অস্কার।

লরা লিনি: জনপ্রিয় এই তারকা অভিনয় করছেন নব্বইয়ের দশক থেকে। তিনবার মনোনয়ন পেলেও অস্কার পাননি তিনি।

বিজ্ঞাপন

সিগোর্নি ওয়েভার: কখনই অস্কার জিতেননি অভিনেত্রী সিগোর্নি ওয়েভার। অথচ হলিউডে তার উজ্জ্বল উপস্থিতি। তিনবার মনোনয়ন পেয়েছেন, কিন্তু অস্কার অধরাই রয়ে গেছে।

টম ক্রুজ: অ্যাকশনে টম ক্রুজ সেরা, অভিনয়েও সমান পারদর্শী। জনপ্রিয়তায় বহু তারকার চেয়ে এগিয়ে। কিন্তু তিনবার অস্কারে মনোনয়ন পেয়েও জিতেননি পুরস্কার।

অ্যানেট বেনিং: থিয়েটার দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করে হলিউডে দর্শকের মন জয় করেছেন অ্যানেট বেনিং। চারবার অস্কারে মনোনয়ন পেয়েছেন। তবুও হাতে ওঠেনি পুরস্কার।

অ্যামি অ্যাডামস: হলিউডে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। অস্কারে ছয়টি মনোনয়নও পেয়েছেন। তবুও অস্কার জিততে পারেননি অ্যামি অ্যাডামস।

গ্লেন ক্লোজ: গ্লেন ক্লোজের মতো অভিনেত্রী অস্কার জিততে পারেননি, এটা বিশ্বাস করাও কঠিন। ৭টি মনোনয়ন পেয়েও অস্কার ভাগ্যে জোটেনি এই তারকার।

পিটার ও’টুল: হলিউডে সবচেয়ে বেশি মনোনয়ন পেয়ে পুরস্কার না পাওয়া অভিনেতা পিটার ও’টুল। সিনেমায় অভিনয় করে অস্কার পাননি তিনি। তবে ২০০৩ সালে তাকে সম্মানসূচক অস্কার প্রদান করা হয়।

বিজ্ঞাপন