চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টাঙ্গাইলে হাত ভাঙার চিকিৎসা নিতে এসে শিশুর মৃত্যু

ভুল চিকিৎসার অভিযোগ, গা ঢাকা দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে হাত ভাঙার চিকিৎসা নিতে এসে ‘ভুল চিকিৎসায়’ লাশ হয়ে বাড়ি ফিরতে হয়েছে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র সাজিদ-কে (১০)।

শনিবার সকালে উপজেলা সদরের বেসরকারি ‘দেওয়ান হাসপাতালে’ এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গা ঢাকা দিয়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সাজিদ দেলদুয়ার উপজেলার লাউহাটী ইউনিয়নের সর্শিনারা গ্রামের জুয়েলের ছেলে বলে জানা গেছে। সে একই উপজেলার বিরকুসিয়া গ্রামের নানা বাড়ি থেকে লেখাপড়া করতো।

নিহতের পরিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ৩ মার্চ সাইকেল চালাতে গিয়ে সাজিদের বাম হাতের উপরের বাহুর হাড় ভেঙে যায়। ৪ মার্চ তাকে মির্জাপুর দেওয়ান হাসপতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার রাতে সাজিদের হাতে অপারেশন করা হয়।

বিজ্ঞাপন

সাজিদের মা সুমা বেগম জানান, ‘শনিবার সকালে সাজিদকে পিংকী নামের একজন নার্স একটি ইনজেকশন দেয়। কিছুক্ষণ পর আরেকজন নার্স এসে আরেকটি ইনজেকশন দেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সাজিদ আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে মারা যায়।’

সাজিদের মৃত্যুর পর দেওয়ান হাসপাতালের ডাক্তার নার্স ও কর্মচারিরা পালিয়ে যায়। পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, ডাক্তার-নার্সদের দায়িত্বে অবহেলা ও ভুল চিকিৎসায় সাজিদের মৃত্যু হয়েছে।

দেওয়ান হাসপাতালের ডাক্তার সোলাইমান হোসেন মেহেদির সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘সাজিদের অপারেশন পরবর্তী চিকিৎসার ব্যবস্থাপত্র সঠিক ছিলো। কর্তব্যরত নার্সের অদক্ষতার জন্য সঠিক নিয়মে ইনজেকশন দেওয়া হয়নি বলে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।’

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ রিজাউল হক দিপু বলেন, ‘পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে সাজিদের মরদেহ থানায় নেওয়া হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’