চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চারজনকে খুনে চার আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল

ঢাকার কেরানীগঞ্জে একই পরিবারের চারজনকে হত্যার ঘটনায় চার আসামিকে বিচারিক আদালতের দেওয়া মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ডেথ রেফারেন্স গ্রহণ ও আসামিদের আপিল খারিজ করে রোববার বিচারপতি সহিদুল করিম ও বিচারপতি মো. আখতারুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রায় দেন। আজকের রায়ে মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকা চার আসামি হলেন- সুমন ঢালী ওরফে ডাকু সুমন, জাকারিয়া হোসেন জনি, সুমন ওরফে সিএনজি সুমন ও মো. নাসিরউদ্দিন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ। আর আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী হেলাল উদ্দিন মোল্লা ও এ কে এম ফজলুল হক খান ফরিদ।

এই মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের কদমপুর এলাকার ছয়তলা একটি ভবনের দ্বিতীয় তলা থেকে অটোরিকশা চালক সাজু আহমেদ (৩৫), তার স্ত্রী রাজিয়া বেগম (২৬), ছেলে ইমরান (৫) ও মেয়ে সানজিদার (৩) হাত-পা চোখ বাঁধা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় সাজুর ভাই বশিরউদ্দিন দক্ষিণ কেরানিগঞ্জ থানায় অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। সে মামলার তদন্তে পুলিশ জানতে পারেন যে, নিহত সাজুসহ আসামিরা একই ডাকাত দলের সদস্য ছিলেন। আসামির মধ্যে সুমন ঢালী ও জনি তাদের স্ত্রীর সঙ্গে সাজুর পরকীয়া সম্পর্ক ছিল বলে সন্দেহ করতেন। এছাড়া সুমনের মোটর সাইকেল এবং তার স্ত্রীর হাতের রুলি চুরি যাওয়ার ঘটনায় সাজুকে সন্দেহ করতেন। এসব ক্ষোভ থেকে আসামিরা অতিথি সেজে সেদিন সাজুর বাসায় যায় এবং সেখানেই রাত্রিযাপন করে। রাতের কোনো এক সময় আসামিরা ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে সাজু ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করে। পরে পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার করে।

এরপর ২০১৫ সালের ১৬ জানুয়ারি আসামীদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। পরবর্তীতে বিচার শেষে ওই বছরের ২৬ নভেম্বর রায় দেন ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ। সে রায়ে এই চার আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। এরপর নিয়ম অনুযায়ী আসামিদের মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে আসে। এছাড়া আসামিরা আপিল ও জেল আপিল করেন। এসবের শুননি নিয়ে আজ হাইকোর্ট আসামিদের আপিল ও জেল আপিল খারিজ করে ডেথ রেফারেন্স গ্রহণ করে রায় দেন।