চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর জরুরি ফোনালাপ

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইকেল আর.পম্পেও এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ. কে. আব্দুল মোমেনের সাথে ফোনালাপ করেছেন।

মঙ্গলবার দুজনের মধ্যকার ফোনালাপে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ সম্পর্কের গুরুত্বের বিষয়টি পম্পে পুনর্ব্যক্ত করেন এবং কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের অব্যাহত সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করেন। সেক্রেটারি পম্পেও এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বাংলাদেশকে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া ৪৩ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি সহায়তা পর্যালোচনা করার পাশাপাশি জরুরি চিকিৎসা ও সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম তৈরি ও সরবরাহের মাধ্যমে আন্তর্জাতিকভাবে মহামারী মোকাবেলায় বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতে আরো বেশি বিনিয়োগের আহ্বানও জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ফোনালাপে তৈরি পোশাক খাতে দু’বছর শুল্কমুক্ত সুবিধা প্রদানের জন্য ফের অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। মাইক পম্পেও জানান, করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের সাহায্যে ৪৩ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দিয়েছে ওয়াশিংটন।

বিজ্ঞাপন

এসময় পম্পেও রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় দেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অব্যাহত উদারতার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেনের প্রশংসা করেন।

যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় মানবিক সহায়তা হিসেবে এ পর্যন্ত প্রায় ৮২০ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিয়েছে, যার বেশিরভাগই বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ কর্মসূচির জন্য।

দুই নেতা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মিয়ানমারে স্বেচ্ছায়, নিরাপদে, মর্যাদাপূর্ণ ও টেকসই প্রত্যাবর্তনে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন। এছাড়াও তারা দীর্ঘমেয়াদী অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং টেকসই উন্নয়নের জন্য স্বচ্ছতা ও তথ্য প্রাপ্তির গুরুত্ব নিয়েও আলোচনা করেছেন।

শেয়ার করুন: