চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনারভাইরাস: ৪৯২ জনকে আর্থিক সহায়তা দিল ছোট পর্দার চার সংগঠন

করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে ছোট পর্দার সমস্ত শুটিং। স্বচ্ছলদের সমস্যা পোহাতে না হলেও এতে বিপাকে পড়েছেন টেলিভিশন প্রোডাকশনের সঙ্গে জড়িত দৈনিক পারিশ্রমিকের ভিত্তিতে করা অসচ্ছল শিল্পী ও কলাকুশলীরা। তালিকা করে অসচ্ছল এমন ৪৯২ জনকে আর্থিক সহায়তা তুলে দিলো ছোটপর্দার চার সংগঠন।

প্রোডিউসার অ্যাসোসিয়েশন, ডিরেক্টর গিল্ড, অভিনয় শিল্পী সংঘ এবং নাট্যকার সংঘ- এই চারটি সংগঠনের উদ্যোগে বুধবার (৮ এপ্রিল) আর্থিক সহায়তা দেয়া হয় ছোটপর্দার সঙ্গে জড়িত অসচ্ছল অভিনয় শিল্পী ও কলাকুশলীদের। চ্যানেল আই অনলাইনকে এমনটাই জানিয়েছেন টেলিভিশন প্রোডিউসার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজু মুনতাসির।

বিজ্ঞাপন

অসচ্ছল ৪৯২ জন সদস্যের জন্য সংগ্রহ করা অর্থ বুধবার (৮ এপ্রিল) বিশিষ্ট নাট্যজন মামুনুর রশিদের উপস্থিতিতে তুলে দেয়া হয়। এসময় প্রোডিউসার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাজু মুনতাসির ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টর গিল্ড-এর সভাপতি সালাউদ্দিন লাভলু, সাধারণ সম্পাদক এস এ হক অলিক ও অভিনয় শিল্পী সংঘের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নয়ন।

বিজ্ঞাপন

সাজু মুনতাসির চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ছোটপর্দায় যারা আমরা কাজ করি, তারা সবাই একই পরিবারের। একের দুঃখে অন্যের এগিয়ে আসা আমাদের কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। সেই জায়গা থেকেই আমরা তহবিল সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছিলাম। প্রোডিউসার অ্যাসোসিয়েশন, ডিরেক্টর গিল্ড, অভিনয় শিল্পী সংঘ এবং নাট্যকার সংঘের সাধারণ সদস্যদের মধ্যে যারা আর্থিকভাবে সচ্ছল, তাদের কাছে সহায়তার আহ্বান জানানো হয়েছিলো। আমরা এই চার সংগঠনের সাধারণ সদস্যদের কাছ থেকে খুব ভাল সাড়া পেয়েছি। যারা আর্থিকভাবে সহায়তা দিয়ে আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

প্রোডিউসার অ্যাসোসিয়েশন-এর এই সাধারণ সম্পাদক বলেন, সংগৃহীত তহবিলের পুরোটাই প্রোডিউসার অ্যাসোসিয়েশন, ডিরেক্টর গিল্ডস, অভিনয় শিল্পী সংঘ এবং নাট্যকার সংঘ ছাড়াও আরো ১২টি সংগঠনের মধ্যে যারা অসচ্ছল তাদের মধ্যে ডিস্ট্রিবিউট করা হয়েছে। বিশেষ করে প্রোডাকশন বয়, লাইট অ্যাসিস্টেন্ট, মেকাপ আর্টিস্ট, অ্যাসিস্টেন্ট ডিরেক্টরসহ এরকম বাকি সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দের হাতে আমরা অর্থ তুলে দিয়েছি। আশা করছি আপদকালীন সময়ে এই অর্থ তাদের ও তাদের পরিবারের জন্য কিছুটা হলেও স্বস্তি বয়ে আনবে।

সাংগঠনিক উদ্যোগ ছাড়া ব্যক্তিগত উদ্যোগেও ছোটপর্দার সঙ্গে জড়িত অনেকে অসচ্ছল শিল্পী ও কলাকুশলীর পাশে দাঁড়াচ্ছেন।