চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: সম্মুখযোদ্ধাদের পরিবারের পাশে এমপি একরাম

করোনাভাইরাস এ মারা যাওয়া সম্মুখযোদ্ধা সাংবাদিক হুমায়ুন কবির খোকন, পুলিশ সদস্য জসিম উদ্দিন ও ডাক্তার মঈন উদ্দিনের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরি।

এরই ধারাবাহিকতায় নতুন করে আজ আবারও মৃত্যুবরণকারী সাংবাদিক আসলাম রহমান ও মাহমুদুদল হাকিম অপুর পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা করে ১ লাখ টাকা এবং নিহত পুলিশ সদস্য জালাল উদ্দিন খোকা, শ্রী রঘুনাথ রায়, মো. আব্দুল খালেক, মো. আশেক মাহমুদ , সুলতানুল আরেফিন এবং নাজির উদ্দীনদের পরিবারের জন্য ৫০ হাজার করে মোট ৩ লাখ টাকা দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া করোনা ঝুকিতে থাকা নোয়াখালীর স্থানীয় সাংবাদিকদের জন্য ২ লক্ষ ও অসুস্থ থাকা একজন সাংবাদিককে ৫০ হাজার টাকাসহ কৃষি যন্ত্রপাতি ক্রয় বাবদ কৃষকদের জন্য ১৪ লাখ টাকা দিয়েছেন।

আর নতুন করে সদর পৌরসভার ২০০০ জনের তালিকা তৈরি করে প্রতিজনকে ১০ কেজি চাল ও নগদ ৫০০ টাকা সহায়তা দিয়েছেন এমপি একরাম।

বিজ্ঞাপন

করোনা সংক্রমণের শুরু থেকেই প্রতিদিন নতুন উদ্যোগ নিয়ে নোয়াখালীর জনগণের পাশে আছেন তিনি। এছাড়া মহামারি করোনার ছোবলে দিশেহারা খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে বিগত দুই মাস ধরে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যহত রেখেছেন এই সাংসদ।

এ বিষয়ে একরামুল করিম চৌধুরি বলেন: রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমি আমার নিজস্ব তহবিল থেকে এসব সাহায্য-সহযোগিতা করে যাচ্ছি। এ কার্যক্রম অব্যহত থাকবে।

তিনি বলেন: আমার এলাকার অসহায়-মধ্যবিত্ত মানুষ যেন কষ্ট না পায় সেই লক্ষে ‘একরাম চৌধুরি ফাউন্ডেশন’ গঠন করেছি। এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে জনগণের পাশে থেকে কাজ করবো। আমি সমাজের সকল বিত্তবানদের আহ্বান জানাই এই ক্রান্তিকালে মানুষের পাশে থাকার।

অন্যদিকে করোনা মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি নিজের অর্থায়নে জনগণের পাশে আছেন একরামুল করিম চৌধুরি। এর আগে প্রায় কোটি টাকা ব্যয়ে জেলার ৬০-৭০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বিতরণ করেন তিনি।