চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: লোহাগড়াকে পূর্ণ আইসোলেট করতে মাশরাফীর আহ্বান

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় নড়াইলের লোহাগড়াকে পূর্ণ আইসোলেট করতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা।

বুধবার লোহাগড়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জরুরি সভায় ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে লোহাগড়াবাসীকে এ আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

করোনা আক্রান্ত মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা অসুস্থ শরীর নিয়ে দীর্ঘক্ষণ উপস্থিত থেকে সবার বক্তব্য শোনেন।

বিজ্ঞাপন

মতবিনিময় সভায় আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ, সরকারি কর্মকর্তা, পুলিশ সদস্যসহ যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা বলেন: লকডাউন শব্দটি এখন সবার কাছে তার আবেদন হারিয়েছে বলে আমার মনে হয়। তাই লকডাউন নয়, আমি বলতে চাই ‘লোহাগড়া ইজ আন্ডার আইসোলেশন’।

মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা তার বক্তব্যে ১০টি বিষয় উল্লেখ করেন। এর মধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য হলো- ১০ জন করে স্বেচ্ছাসেবী টিম গঠন করা। চলমান পরিস্থিতিতে একসাথে টিম ওয়ার্ক করলে সবার মাঝে একটি ভ্রাতৃত্বের বন্ধন তৈরি হবে বলে মনে করেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

এছাড়া টেস্টের পরিমাণ বাড়িয়ে করোনা পজিটিভদের আইসোলেট করা এবং নেগেটিভ যারা তারা যেন ঘরের বাইরে না যায় এমন একটি পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারলে দ্রুত সময়ের মধ্যে আশানুরূপ পরিবেশ ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলে মত দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

লোহাগড়ার সাথে কয়েকদিনের জন্য সমস্ত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার বিষয়েও জেলা প্রশাসকের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলেও জানান মাশরাফী।

করোনায় নিজের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমার সন্তানদের থেকে ১৭ দিন বিচ্ছিন্ন আছি, একজন পিতা হিসেবে এটা কতোটা কষ্টের তা বলে বোঝানো যাবে না। আমি আমার পরিবারের সদস্যদের থেকেও বিচ্ছিন্ন আছি। তারা আমার কাছে আসতে পারছেন না। এটা অনেক বেদনার। আমি আক্রান্ত হলেও আমি আমার সর্বোচ্চটা দিয়ে কাজ করে যাব। হয়তো আমরা করোনাকে আটকাতে পারবো না, তবে এখনি সকলে একমত হয়ে কাজ শুরু করলে আমরা আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা কমিয়ে আমাদের এলাকাকে নিরাপদ রাখতে পারবো।

তিনি আরো বলেন, নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন আগামী ১০ তারিখ থেকে লোহাগড়া ও নড়াইল সদরে দুটি বুথের মাধ্যমে লোহাগড়া ও সদরের করোনা আক্রান্ত রোগীদের প্রয়োজনে অক্সিমিটার ও অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজামউদ্দিন খান নিলু, লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুকুল কুমার মৈত্র, লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, লোহাগড়া ও লক্ষীপাশা বণিক সমিতির নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাগণ, স্বেচ্ছাসেবকসহ অন্যান্যরা। অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা।

আগামী ৮জুলাই থেকে ২১ জুলাই পর্যন্ত লোহাগড়া পৌরসভাকে আন্ডার আইসোলেশন এর আওতায় রেখে লকডাউন ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেন লোহাগড়া উপজেলা প্রশাসন।

উল্লেখ্য, লাফিয়ে লাফিয়ে করোনা রোগী বৃদ্ধির কারণে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার পৌর এলাকায় ২৬ জুন লকডাউন ঘোষণা করে উপজেলা প্রশাসন। কিন্তু পৌর প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের সম্বনয়হীনতার কারনে ঢিলেঢালা লকডাউন চলছে পৌর এলাকায়। ফলে পৌর এলাকায় লকডাউন ঘোষণার পরে দিগুণ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।