চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: ভারতে ৬০ লাখ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বেকার

করোনাভাইরাসের লকডাউনের কারণে শুধু শ্রমিকরাই কাজ হারাননি, চাকরি হারিয়েছেন ভারতের ৬০ লাখ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।
সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকনমি(সিএমআইই)-র সর্বশেষ রিপোর্টে (মে থেকে আগস্ট মাস) এমন তথ্য উঠে এসেছে।

মার্চের শেষের দিকে করোনার কারণে ভারতে লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে বলা হয়, লকডাউনের ফলে ইঞ্জিনিয়ার, চিকিৎসক, শিক্ষক অ্যাকাউন্টেন্ট, পেশাদারেরাও চাকরি হারিয়েছেন।  জুনে লকডাউন তুলে নেওযার পরও নানা বিধিনিষেধ এবং স্থানীয় পর্যায়ে লকডাউনের কারণে অর্থনীতির চাকা প্রত্যাশা অনুযায়ী ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জরিপের বরাত দিয়ে হিন্দুস্থান টাইমস বলছে, ২০১৬ সালে দেশে উচ্চপদস্থ চাকরিজীবীর সংখ্যা ছিলো ১ কোটি ২৫ লাখ। সেটা মে-আগস্ট, ২০১৯ সালে দাঁড়ায় ১ কোটি ৮৮ লাখে। সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর, ২০১৯ এ তা হয় ১ কোটি ৮৭ লাখ। এরপর জানুয়ারি-এপ্রিল মাসে এ পরিসংখ্যান কমে হয় ১ কোটি ৮১ লাখ। কিন্তু মে-আগস্ট, ২০২০ সালে করোনার প্রভাবে উচ্চপদস্থ কর্মীর সংখ্যা কমে হয়েছে ১ কোটি ২২ লাখে দাঁড়ায়। অর্থাত ৫৯ লাখ পেশাদার চাকরি হারিয়েছেন। যদিও এই পরিসংখ্যানে নিজস্ব উদ্যোগে যারা কাজে জড়িত ছিলেন তাদের বিষয় উঠে আসেনি।

গত বছরের একই সময়কালের তুলনায় চাকরি কমেছে প্রায় ৬৬ লাখ তথা বেকারত্ব বেড়েছে ২৬ শতাংশ।

ভারত বর্তমানে করোনা আক্রান্ত দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষে দুয়ে অবস্থান করছে। গত এক মাসের বেশি সময় ধরে দৈনিক হিসেবে সর্বোচ্চ আক্রান্ত হচ্ছে দেশটিতে। এরই মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়েছে  ৫২ লাখ ১২ হাজার ৬৮৬ জন। আর মারা গেছে ৮৪ হাজার ৪০৪ জন।

বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, এধারা চলতে থাকলে শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যাবে ভারত। আর এতে করে প্রভাব পড়বে অর্থনীতিতে, চাকরি হারানোর সংখ্যাও বেড়ে যাবে, বেড়ে যাবে বেকারত্ব।