চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাকালে সত্যিই কি ফ্রিতে নেটফ্লিক্স?

‘ফ্রিতে দেখা যাবে নেটফ্লিক্স’- ক’দিন ধরে এমন একটি লোভনীয় বার্তা ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় এবং হোয়াটঅ্যাপের মেসেজ বক্সে। কোয়ারেন্টাইনের এই অবসরে এরকম আকর্ষণীয় অফার দেখলে যে কেউ লুফে নিতে চাইবে! কিন্তু এটি মূলত একটি ফাঁদ! আর এই ফাঁদে পা দিলেই অপেক্ষা করছে বিপদ!

বিশ্বের জনপ্রিয় অনলাইন স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম নেটফ্লিক্স জানিয়েছে বিনামূল্যে নেটফ্লিক্স দেখার কোনো সুযোগ তারা দিচ্ছে না। সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে যেই লিংক শেয়ার করা হচ্ছে সেটা ভুয়া এবং বিপদজনক। কারণ বিনামূল্যে নেটফ্লিক্স চালানোর লোভে ওই লিংক এ ক্লিক করলেই ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য চলে যেতে পারে হ্যাকারদের কাছে।

বিজ্ঞাপন

হ্যাকাররা ফ্রি নেটফ্লিক্সের লোভ দেখিয়ে ইমেইল অ্যাড্রেস নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া হ্যাক করার চেষ্টা করে। কৌশলে ভ্যারিফিকেশন কোডও চেয়ে নেয় অ্যাকাউন্ট মালিকের কাছ থেকে। ফলে সহজেই অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ফেলে এবং এরপর ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ চাইতে থাকে।

বিজ্ঞাপন

এই বিপদ থেকে বাঁচতে হোয়াটসঅ্যাপে ‘টু-স্টেপ ভ্যারিফিকেশন’ চালু করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এতে ছয় ডিজিটের পিন নম্বর হ্যাকারদের কাছে গেলেও হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টে ঢুকতে আরও একটি পাসওয়ার্ড প্রয়োজন হবে। তাই হ্যাক করা কঠিন হয়ে যাবে। অন্য সোশ্যাল মিডিয়ার মেসেজিং সার্ভিসের ক্ষেত্রেও কাউকে পিন শেয়ার করতে নিষেধ করেছেন সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে করোনার এই সংকটকালে নেটফ্লিক্স আগেই ঘোষণা দিয়েছে, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় তারা একশ মিলিয়ন ডলারের ফান্ড গঠন করেছে। আর এই অর্থ ব্যয় তারা ব্যয় করছেন টেলিভিশন ও সিনেমার সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পী ও কলাকুশলীদের জন্য।