চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কত রান নিরাপদ বলতে পারলেন না প্রিন্স

চট্টগ্রাম থেকে: সকালে নতুন বলে শুরুর স্পেলে দারুণ বাউন্স ও সুইং পেয়েছেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। প্রথম ঘণ্টার পর কমতে থাকে বোলিংয়ের ধার। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট থেকেও পরে মেলেনি সহায়তা। প্রথম ঘণ্টায় চার উইকেট তুলে নেয়া দলকে দুই সেশনেরও বেশি সময় থাকতে হয়েছে উইকেটহীন।

মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের অবিচ্ছিন্ন ২০৪ রানের জুটি বাংলাদেশকে এনে দেয় শুরুর অন্ধকার সরিয়ে আলোর পথ। আলোক স্বল্পতায় ৫ ওভার আগে যখন চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথমদিনের খেলা শেষ হয় বাংলাদেশের বোর্ডে তখন ২৫৩ রান।

স্বাগতিকদের হাতে ৬ উইকেট। প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি পাওয়া লিটন ১১৩ রানে অপরাজিত আছেন। মুশফিক দাঁড়িয়ে অষ্টম সেঞ্চুরির কাছে। ৮২ রানে অপরাজিত তিনি।

বিজ্ঞাপন

দিনের খেলা শেষে বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং কোচ অ্যাশলে প্রিন্স ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বললেন, ‘খুব ভালো পিচ ব্যাটিং করার জন্য। ৪০০ যথেষ্ট নাকি ৫০০, কেউই বলতে পারবে না। আমাদের লক্ষ্য থাকবে ব্যাটিং করে যাওয়া যতক্ষণ পর্যন্ত অধিনায়ক ডিক্লেয়ার করার জন্য পর্যাপ্ত রান হয়েছে মনে না করবেন।’

মুশফিক-লিটনের পর বাংলাদেশের শেষ স্বীকৃত ব্যাটার আছেন চট্টগ্রামের ছেলে ইয়াসির আলি রাব্বি ও অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। ঘরের মাঠে ইয়াসিরের চলতি টেস্টেই অভিষেক হয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সবশেষ সিরিজে এই মাঠে সেঞ্চুরি করেছিলেন মিরাজ।

বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটে মিরাজের কাছ থেকেও রান প্রত্যাশা করা যেতে পারে। একাদশে শুধু বোলারের ভূমিকায় থাকা তিনজন হলেন- তাইজুল ইসলাম, আবু জায়েদ রাহি, ইবাদত হোসেন।

বিজ্ঞাপন