চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এবার ফিডব্যাক গাইবে ‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’

ঈদের চাঁদ দেখা যাওয়ার পর থেকেই চ্যানেল আইয়ে প্রচার হবে ফিডব্যাকের গাওয়া ‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’…

ঈদ উৎসবের জাতীয় সংগীত বলা হয় ‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’ গানটিকে। সন্ধ্যায় ঈদের চাঁদ দেখার পরেই টেলিভিশন ও রেডিওতে বাজতে শুরু করে কাজী নজরুল ইসলামের লেখা তুমুল শ্রোতাপ্রিয় এই গানটি। বাংলাদেশে এটি রেওয়াজে পরিনত হয়েছে।

ভিন্ন সংগীতায়োজনে জনপ্রিয় শিল্পীদের দিয়ে ‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’ গানটি প্রচার করে চ্যানেল আই। এবারও হচ্ছে না ব্যতিক্রম। আসছে ঈদুল ফিতরে চাঁদ দেখা যাওয়া মাত্রই চ্যানেল আইয়ে প্রচার হবে বিখ্যাত এই নজরুল সংগীতটি। এমনটাই জানিয়েছে চ্যানেল আই কর্তৃপক্ষ।

প্রতিবারের মতো এবারও নতুন আয়োজনে ‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’ গানটির নির্মাণ ও তত্ত্ববধানে ছিলেন অনন্যা রুমা। তার প্রযোজনায় ও নির্দেশনায় গত এগারো বছর ধরে চ্যানেল আইতে রমজানের ঈদ ঘোষণা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই নতুন সংগীতায়োজনে গানটি পরিবেশিত হয়ে আসছে।

বিজ্ঞাপন

নতুন সংগীতায়োজনে চ্যানেল আইয়ে প্রচারিত ‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’ গানটি এখন পর্যন্ত গেয়েছেন রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিন, ফেরদৌস আরা, তপন মাহমুদ, সাদী মহম্মদ, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, মমতাজ, এসআই টুটুল, লিলি ইসলামসহ আরো অনেকে।

সংগীতায়োজনেও প্রতিবছর ভিন্নতা আনা হয়। ইবরার টিপু থেকে শুরু করে বিভিন্ন সময়ে ‘রমজানের ঐ রোজার শেষে’র সংগীতায়োজন করেছেন আলাউদ্দিন আলী, জাহাঙ্গীর সাঈদ, এসআই টুটুল ও আইয়ুব বাচ্চুর মতো মিউজিশিয়ানরা।

এবারের গানটির নতুন সংগীতায়োজন করেছেন ফিডব্যাক-এর ফুয়াদ নাসের বাবু। গেল মাসেই চ্যানেল আইতে গানটির রেকর্ডিংয়ের কাজ সম্পন্ন হয় বলে জানান অনন্যা রুমা।

গানটি প্রসঙ্গে অনন্যা রুমা বলেন, রমজানের ঈদের ঘোষণা এলেই এই গানের কথা সুর আমাদের মনকে অন্যরকম আনন্দ দেয়, উদ্বেলিত করে তুলে। এই গানের শাশ্বত একটা আবেদন আমাদের মধ্যে তৈরি হয়ে আছে। সেই দিকটি বিবেচনা করেই প্রতিবছর আমরা চেষ্টা করি বাংলার শ্রোতা-দর্শকদের একটু নতুন আয়োজনে গানটি পরিবেশনের চেষ্টা করি।

বিজ্ঞাপন