চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘এই সময়ে খেললে গোয়ালাই হতেন বাংলাদেশের সেরা বোলার’

বলে কয়ে জায়গায় বল ফেলতেন। দুমড়ে-মুচড়ে দিতেন প্রতিপক্ষ দলের ব্যাটিং। নিজের স্বাধীনতা অনুযায়ী সাজাতেন ফিল্ডার। বাংলাদেশের প্রথম বাঁহাতি স্পিনার ও চায়নাম্যান বোলারের নিশানা এতটাই নিখুঁত ছিল যে, সতীর্থরাও অবাক হয়ে যেতেন।

এমন প্রতিভা ছিল যার মধ্যে, সেই রামচাঁদ গোয়ালা ৭৯ বছর বয়সে পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন পরলোকে। শুক্রবার ভোরে ময়মনসিংহের ব্রাহ্মপল্লির নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ষাট-আশির দশকের এ বোলিং জাদুকর।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

গোয়ালা ৫৩ বছর বয়সেও খেলেছেন ঢাকা লিগে। খেলার জন্য বিয়েটাও করেননি। যতদিন মাঠে ছিলেন, শাসন করেছেন প্রতিপক্ষ দলের ব্যাটসম্যানদের। আবাহনীর হয়েই খেলেছেন ১৫ বছর। ১৯৭৯ থেকে ১৯৮৩, চার মৌসুম গোয়ালাকে সতীর্থ হিসেবে পেয়েছিলেন বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

পেছনে ফিরে সাবেক এ ক্রিকেটার রামচাঁদ গোয়ালার প্রতিভা সম্পর্কে চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘এই সময়ে খেললে গোয়ালাই হতেন বাংলাদেশের সেরা বোলার। কোন জায়গায় বল ফেলবে সেটা সে আগেই বলে দিতে পারত। সে অনুযায়ীই ফিল্ডার রাখতেন। ঠিক সেখানেই যেতো। তার বয়স যখন চল্লিশ পেরিয়ে গেছে, তখনও ইডেন পশ্চিমবঙ্গের বিপক্ষে কী দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন। তিনি বিস্ময়কর এক প্রতিভা।’

‘ফিটনেসের কারণে পঞ্চাশ পেরিয়েও খেলেছিল। ফিট থাকলে যে দীর্ঘদিন ক্রিকেট খেলা যায় এ প্রজন্মের ক্রিকেটারদের কাছে তার চেয়ে বড় উদাহরণ আর হতে পারে না। ক্রিকেটের জন্য বিয়েও করেননি। ভাইয়ের পরিবারের সঙ্গে কাটিয়ে দিয়েছেন পুরো জীবন।’