চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইসলামকে সন্ত্রাসের সঙ্গে মিলিয়ে ফেলা হচ্ছে: ওবামা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কোনো প্রেসিডেন্ট হিসেবে বারাক ওবামা প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের একটি মসজিদ পরিদর্শন করেছেন।

এ উপলক্ষে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই একই আমেরিকান পরিবারের অংশ। যুক্তরাষ্ট্রে সব ধর্ম পালনেরই স্বাধীনতা রয়েছে।’

ভয়েস অব আমেরিকা জানায়, মুসলিম আমেরিকান গোষ্ঠীগুলো অনেকদিন ধরেই প্রেসিডেন্ট ওবামাকে মসজিদ পরিদর্শনের আহ্বান জানিয়ে আসছিলো। সেই ডাকে সাড়া দিয়ে অবশেষে মসজিদে গেলেন ওবামা।

মসজিদে ভাষণ দেয়ার আগে তিনি মুসলিম আমেরিকান নেতাদের উদ্বেগের কথা শোনার জন্য একটি গোল টেবিল আলোচনায়ও অংশ নেন।

ইসলামিক সোসাইটি অফ বাল্টিমোরে মুসলিম আমেরিকানদের উদ্দেশ্য ওবামা বলেন, আমেরিকানরা ‘প্রায়ই’ ইসলামকে সন্ত্রাসের সঙ্গে মিলিয়ে ফেলে। ‘মুষ্টিমেয় কয়েকজনের সহিংস আচরণের কারণে’ সমগ্র মুসলিম সম্প্রদায়কে দোষারোপ করা হয়।

এ কারণে আমেরিকান মুসলিমরা সন্ত্রাসী হামলার পাশাপাশি সেসব হাতে গোনা কয়েকজন চরমপন্থির দোষে অপবাদ ও হুমকির মুখে থাকে বলে মনে করেন তিনি।

Advertisement

এছাড়াও প্রেসিডেন্ট ওবামা সম্প্রতি কয়েকজন আমেরিকান রাজনীতিকের কথায় যে মুসলিম-বিরোধী আলোচনা শুরু হয়েছে তার তীব্র সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমরা সম্প্রতি মুসলিম আমেরিকানদের বিরুদ্ধে নানা ধরণের রাজনৈতিক কথাবার্তা চলছে যা অমার্জনীয়। আমাদের দেশে এমন রাজনৈতিক বাগাড়ম্বরের কোন জায়গা নেই।’

যুক্তরাষ্ট্রের একান মসজিদে ওবামার এই প্রথম পরিদর্শন এমন এক সময়ে ঘটলো যখন প্রেসিডেন্ট মনোনয়ন প্রার্থীদের নির্বাচনী অভিযানে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের তথ্য আলাদাভাবে সংরক্ষণ এবং মুসলিম অভিবাসী ঢোকার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলছেন।

গত ২ ডিসেম্বর ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান বার্নারদিনোতে সন্ত্রাসী হামলার পর ট্রাম্প এসব কথা বলেন।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর জন ম্যাককেইন ও প্রেসিডেন্ট পদের আরেক প্রার্থী জেব বুশ মুসলমানদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যাপারে ট্রাম্পের এই আহ্বানের নিন্দা করেছেন।

অন্য প্রার্থী বেন কারসন গত বছর বলেন, ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসীরা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার যোগ্যতা রাখেন না।