চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘আলতা বানু’র জন্যই ‘মায়াবতী’র জন্ম!

আসছে শুক্রবার মুক্তি পেতে যাচ্ছে অরুণ চৌধুরীর দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘মায়াবতী’। ইতোমধ্যে দেশের নামিদামি বেশকিছু প্রেক্ষাগৃহে ছবিটির মুক্তি নিশ্চিত হয়েছে। তার আগে ছবির প্রচারণা নিয়ে ছুটছে মায়াবতী টিম। তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার চ্যানেল আই অনলাইনের নিয়মিত শো ‘কথাবার্তা’য় এসেছিলেন ছবির পরিচালক অরুণ চৌধুরী, প্রযোজক আনোয়ার আজাদ ও অভিনেত্রী তিশা।

ছবির বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেছেন অতিথিরা। তারই ফাঁকে ‘মায়াবতী’ ছবিতে প্রযোজক আনোয়ার আজাদের সম্পৃক্ততা নিয়ে কথা বলেন নির্মাতা অরুণ চৌধুরী।

বিজ্ঞাপন

‘মায়াবতী’র প্রযোজক আনোয়ার আজাদ। বাঙালি হলেও তিনি থাকেন সুদূর কানাডায়। টরেন্টোতে ‘ইন্টারনেশনাল ফিল্ম ফেস্টিভাল অব সাউথ এশিয়া’র সঙ্গে যুক্ত আছেন তিনি। গেল বছর অরুণ চৌধুরীর ‘আলতাবানু’ ছবিটিও মনোনীত হয়েছিলো সেই উৎসবে। এই ছবিটি দেখেই নাকি আনোয়ার আজাদ সরাসরি নির্মাতা অরুণ চৌধুরীকে তার পরবর্তী ছবির জন্য প্রস্তাব করেন!

এ বিষয়ে অরুণ চৌধুরীর ভাষ্য, গেল বছর ‘আলতা বানু’ ছবিটি নিয়ে আমি টরেন্টোতে সাউথ এশিয়ান ফেস্টিভালটিতে গিয়েছিলাম। তো এই ফেস্টিভালের অন্যতম একজন মেম্বার হলেন আনোয়ার আজাদ। ওই ফেস্টিভালে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ‘আলতা বানু’ ছবিটি দেখে তিনি আমাকে বললেন, আপনার পরবর্তী ছবিটি আমি প্রডিউস করতে চাই! এরপরেই জন্ম হলো ‘মায়াবতী’র!

অরুণ চৌধুরী বলেন, মায়াবতীর চিত্রনাট্য গুছিয়ে প্রথমেই গেলাম তিশার কাছে। কারণ আমার প্রথম ছবি ‘আলতা বানু’ ও তিশাকে নিয়েই করতে চেয়েছিলাম। সে সময় তিশা সময় দিতে পারেনি। তবে এবার সব মিলিয়ে তৈরী হলো ছবিটি। এখন বাকিটা দর্শকের বিবেচনা।

ইয়াশ রোহান ও নুসরাত ইমরোজ তিশা জুটির প্রথম চলচ্চিত্র ‘মায়াবতী’। ছবির পোস্টার,টিজার ও ট্রেলার প্রকাশের পর বেশ আগ্রহ তৈরী করেছে অরুণ চৌধুরীর এই ছবিটি। প্রচার প্রচারণায়ও বেশ সাড়া ফেলেছে ছবিটি। অনলাইনে চলচ্চিত্র বিষয়ক গ্রুপ থেকে শুরু করে সাধারণ চলচ্চিত্র প্রেমীরাও ছবিটির প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন।

শুধু তাই নয়, চলচ্চিত্রের দাপুটে নির্মাতা, অভিনেতারাও তিশা-ইয়াশ জুটির ‘মায়াবতী’ ছবিটি দেখার আহ্বান জানিয়ে সোশাল মিডিয়াতে পোস্ট করছেন। বিষয়টিকে বাংলা চলচ্চিত্রের জন্য খুব ইতিবাচক বলে মন্তব্য করেছেন কানাডা প্রবাসী প্রযোজক আনোয়ার আজাদ।


‘মায়াবতী’তে থাকছে একটি মেয়ের গল্প, তার রূপ যৌবন এবং সঙ্গে অনেক প্রেম! নারী পাচার ও যৌনপল্লীর গল্প নিয়ে নিজের কাহিনী ও চিত্রনাট্যে সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন পরিচালক অরুণ চৌধুরী। চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছে আনোয়ার আজাদ ফিল্মস ও অনন্য সৃষ্টি ভিশন। এছাড়া পরিবেশনার দায়িত্বে রয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া।

‘মায়াবতী’তে তিশা ও রোহান ছাড়াও অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, রাইসুল ইসলাম আসাদ, দিলারা জামান, মামুনুর রশীদ, ওয়াহিদা মল্লিক জলিসহ অনেকে।

Bellow Post-Green View