চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘আমি সিনেমায় আসার আগেই এন্ড্রু দা ছিলেন আমার প্রিয় শিল্পী’

কিংবদন্তি শিল্পী এন্ড্রু কিশোর মারা গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে দেশের সংগীতাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কেউ তাঁর চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছেন না।

যেহেতু এই শিল্পী চলচ্চিত্রের গানের জন্যই সবার কাছে বিখ্যাত হয়ে উঠেছিলেন, তাই তাঁর মৃত্যু শোক ছুঁয়ে যাচ্ছে চলচ্চিত্রের মানুষদেরও।

বিজ্ঞাপন

দেশের জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খানও এন্ড্রু কিশোরের মৃত্যুতে শোকে মূহ্যমান। একইসঙ্গে এই খ্যাতিমান শিল্পীর প্রয়াণে সমবেদনা জানিয়েছেন তাঁর পরিবারের প্রতি।

বিজ্ঞাপন

মৃত্যুর খবর শোনার পর চ্যানেল আই অনলাইনকে শাকিব খান বলেন, এন্ড্রু কিশোরের চলে যাওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের সংগীত একজন লিজেন্ডকে হারালো। এই ক্ষতি কখনো পূরণ হওয়ার নয়। আমার ছবির অগণিত জনপ্রিয় গান তার কণ্ঠ থেকে এসেছে। শুধু আমার ছবি নয়, অসংখ্য সুপার ডুপার হিট গান আমরা তাঁর কাছ থেকে পেয়েছি যা বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের গান তথা গোটা সংগীত ভুবনকে সমৃদ্ধ করেছে।

তিনি বলেন, তাঁর প্রায় প্রতিটি গানই মানুষের মনে গেঁথে আছে। কয়েক দশক ধরে চলচ্চিত্রের গানে তিনি আমাদের সবার শ্রদ্ধাভাজন হয়ে আছেন। তাঁর গান শুনে অনুপ্রাণিত হয়ে এ প্রজন্মের অনেক শিল্পী সংগীত জগতে এসেছেন। উনি এমন একজন শিল্পী যার প্রায় প্রতিটি গানই জনপ্রিয়। এন্ড্রু কিশোর হলেন রোমান্টিক গানের মাস্টার ভয়েস।

সিনেমায় আসার আগেই এন্ড্রু দা ছিলেন আমার প্রিয় শিল্পী। তাঁর কত গান গুনগুন করে গেয়েছি ঠিক নেই। সিনেমায় আসার পর থেকেই তাঁকে আমি পাশে পেয়েছি। আমার সঙ্গে তার অত্যন্ত চমৎকার সুসম্পর্ক ছিল।

এন্ড্রু কিশোরের শেষ জীবনের কথা উল্লেখ করে শাকিব আরো বলেন, সারাটা জীবন উনি গান করে গেছেন, অথচ তাঁর জীবনের শেষ সময়টা চিকিৎসার জন্য নিজের ফ্ল্যাটও বিক্রি করতে হয়েছে। একজন কিংবদন্তি শিল্পীকে কেন এতো শোচনীয় অবস্থার মধ্য দিয়ে যেতে হবে? তাঁর মতো শিল্পী কি আমরা আর পাবো? তাই তাঁর মতো লিজেন্ড যারা আছেন তাদের প্রতি সরকার ও আমাদের আরও যত্নশীল হওয়া উচিত।

শুধু শাকিব খান নয়, নায়করাজ রাজ্জাক থেকে শুরু করে আনোয়ার হোসেন, সোহেল রানা, জাফর ইকবাল, ইলিয়াস কাঞ্চন, সালমান শাহ, ওমর সানীসহ এই প্রজন্মের নায়করাও প্রয়াত কিংবদন্তি শিল্পীর কণ্ঠে বড় পর্দায় ঠোঁট মিলিয়েছেন। তার গাওয়া প্রায় সব গানই বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।