চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আফগানিস্তানে ইফতারের তালিকায় কী থাকে?

দেশে দেশে ইফতার:

রমজান মাস রহমতের মাস। দুনিয়াজুড়ে মুসলিম সম্প্রদায় রমজানের রোজা পালন করছেন। আর এই রোজার অপরিহার্য অনুষঙ্গ হল ইফতার। রোজাদারের সবচেয়ে আনন্দের মুহূর্ত ইফতারের সময়। কারণ এ সময় আল্লাহ তাআলা তাঁর রোজাদার বান্দাদের দোয়া কবুল করেন এবং ইফতারের মাধ্যমেই একজন রোজাদার তাঁর রোজা সম্পন্নের পর মহান আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জন করেন।

বিভিন্ন দেশের মানুষ নানাভাবে আলাদা খাবার ও সামগ্রী দিয়ে সম্পন্ন করেন ইফতার। কোথাও কোথাও একই দেশে অঞ্চলভেদে ইফতার সামগ্রীতেও পার্থক্য দেখা যায়। তবে সাধারণভাবে সব দেশের ইফতারে ফল, জুস, খেজুর, পানি, দুধ বেশ প্রচলিত। এগুলোর সঙ্গে যুক্ত হয় স্থানীয় কোনো কোনো আইটেম।

Reneta June

তবে ইসলামী শরীয়তে সারাদিন রোজা থাকার পর ইফতারে রোজা খোলার নিয়ম মূলত খেজুর দিয়ে। কারণ খেজুর হল সুন্নতি ফল। তবে খেজুর না থাকলে পানি পান করে রোজা ভাঙা সবচেয়ে ভালো বলে মনে করেন অনেক বিজ্ঞজন।

বিজ্ঞাপন

আমাদের দেশে ইফতারের সময় সাধারণত খেজুর, পিঁয়াজু, বেগুনি, হালিম, আলুর চপ, জিলাপি, মুড়ি ও ছোলা। একটু ব্যতিক্রমী হলে থাকে সমুচা, ফিশ কাবাব, মাংসের কিমা ও মসলা দিয়ে তৈরি কাবাবের সঙ্গে পরোটা, মিষ্টি ও ফল। সেই সঙ্গে থাকে বিভিন্ন মৌসুমি ফল। আর  শরবত তো আছেই। অনেক সময় ভারী খাবারও থাকে ইফতার আয়োজনে।

আমাদের দেশের মত অন্যান্য মুসলিম দেশগুলোতেও নানা আয়োজনের মধ্য দিয়েই ইফতার করেন রোজাদাররা। এক্ষেত্রে আমরা উল্লেখযোগ্য মুসলিম দেশ হিসেবে আফগানিস্তানের খাদ্য তালিকা উল্লেখ করেছি।

সাধারণত ইফতারে আফগানিস্তানিদের খাদ্য তালিকায় থাকে অনেক কিছু। তবে ইফতারে তারা মূলত খেজুর, স্যুপ, পেয়াজু, গোশত কারি, ফ্রুট সালাদ, কাবাব, বেগুনি ইত্যাদি রাখেন। এছাড়া থাকে হরেক রকম ফ্রেশ ও শুকনো ফল। জুস আফগানিস্তানিদের ইফতার টেবিলের মধ্যমণি হয়ে থাকে।