চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আদালতে নির্লিপ্ত রসু খাঁ

সিরিয়াল কিলার রসু খাঁ আদালতে রায় ঘোষণার দিনও ছিল নির্বিকার। তার ভাবটা এমন ছিল যেন কোনো কিছুই করেনি সে। ভাবনাহীন চেহারায় টেনে যাচ্ছেন সিগারেট। এগারোজন নারীকে ধর্ষণ করার পর তাদের হত্যা করে এই রসু খাঁ।

বুধবার আদালত প্রাঙ্গনে ডান্ডাবেরি পড়া অবস্থায় তাকে দেখা যায় পুলিশের সাথে হেসে হেসে কথা বলতে। বারান্দায় বসে পা দুলিয়ে দুলিয়ে সিগারেট খেতে। এতোগুলো মানুষকে সে হত্যা করেছে তা নিয়ে তার মধ্যে কোনো দুঃখবোধই দেখা যাচ্ছিল না।

Advertisement

২০০৯ সালের ৭ অক্টোবর পুলিশের হাতে ধরা পড়ার আগ পর্যন্ত রসু খাঁ একজন সাধারণ অপরাধী ছিল। পুলিশের কাছে তার  স্বীকারোক্তির পর একে একে বেরিয়ে আসে তার সব কুর্কম। নিজের মুখে স্বীকার করেন ১১ নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করার কথা।

কথিত আছে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে রসুখাঁ ১০১ জন নারীকে হত্যা করার সিদ্ধান্ত নেয় । তার হাতে নিহত অধিকাংশ নারীর কোনো নাম ঠিকানা বা হদিস জানা যায়নি।

তবে টঙ্গীর গার্মেন্টস কর্মী শাহেদা হত্যা মামলায় বুধবার তার মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন আদালত।