চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আইনগত সহায়তা পাওয়া অসহায় মানুষের অধিকার: প্রধান বিচারপতি

সরকারি ব্যবস্থাপনায় আইনগত সহায়তা পাওয়া কোন দান বা করুণা নয়, এটা দরিদ্র ও অসহায় মানুষের অধিকার বলে উল্লেখ করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

‘উচ্চ আদালতে সরকারি আইনি সেবা: চলমান প্রক্রিয়া ও প্রত্যাশা’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটি ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন রোববার সুপ্রিম কোর্ট অডিটোরিয়ামে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

প্রধান বিচারপতি বলেন: ‘আইনের দৃষ্টিতে সমতা’র যে অমীয় বাণী আমরা বারবার প্রতিধ্বনিত করি, আইনগত সহায়তা ব্যতিরেকে তা কখনোই বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। আর এই আইনগত সহায়তাকেই ‘Access of Justice’ এর অন্যতম স্তম্ভ বলা হয়।

বিজ্ঞাপন

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন: বাংলাদেশের আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপটে আইনের দৃষ্টিতে সমতা অর্জন করতে হলে আইনগত সহায়তা প্রদানের কোন বিকল্প নেই।

অসহায়, দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের আইনগত অধিকার ও ন্যায়বিচার প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে বার কাউন্সিল, বার অ্যাসোসিয়েশন, আইনজীবী, মানবাধিকার কর্মীসহ বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসমূহকে আরো এগিয়ে আসার আহ্বান জানান প্রধান বিচারপতি।

তিনি আরও বলেন: সমাজের সবচেয়ে নির্যাতিত নিপীড়িত ব্যক্তি বিশেষভাবে নারী ও শিশুরা লিগ্যাল এইড থেকে যেন বঞ্চিত না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন: কিছু কিছু বিষয়ে আইন সহায়তা প্রদানকালে পুঁথিগত আইন প্রয়োগের দৃষ্টির পাশাপাশি সামাজিক ও মানবিক দৃষ্টিকোণকে স্থান দেয়া উচিত। যেমন আপসযোগ্য মামলা আদালতের বাইরে এবং মাদকের মামলায় মাদকাসক্তদের কারাগারে না পাঠিয়ে সমাজে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য পুনর্বাসনের ব্যাপারটা ভেবে দেখা উচিত।

সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ড. জাকির হোসেন, জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার পরিচালক মো: আমিনুল ইসলাম ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম।

Bellow Post-Green View