চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অ্যাম্বারের গায়ে হাত তোলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জনি ডেপ

অ্যাম্বার হার্ড ও জনি ডেপের বিচ্ছেদের তিন বছর পার হয়ে গেছে। এতদিন পর আবারও তারা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের আলোচনায়। লন্ডনের উচ্চ আদালতে একে অপরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলেছেন তারা। সেখানে অ্যাম্বারের গায়ে হাত তোলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জনি ডেপ।

২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে একটি ব্রিটিশ সংবাদপত্র ‘দ্য সান’-এ জনি ডেপের বিরুদ্ধে প্রাক্তন স্ত্রী অ্যাম্বারের গায়ে হাত তোলার অভিযোগ করা হয়। এই খবর প্রকাশের পর সংবাদপত্র ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন জনি ডেপ। সম্প্রতি লন্ডনের উচ্চ আদালতে সেই মামলার শুনানি ছিল।

বিজ্ঞাপন

শুনানিতে সংবাদপত্রের পক্ষের আইনজীবী দাবি করেন, তাদের কাছে ডেপের বিরুদ্ধে প্রমাণ আছে। আইনজীবীর মতে, জনি ডেপের হাতে আঁকা একটি ট্যাটু নিয়ে হাসাহাসি করেছিলেন অ্যাম্বার। তাতে রেগে গিয়ে অ্যাম্বারকে চড় মেড়েছিলেন জনি ডেপ।

বিজ্ঞাপন

তবে জনি ডেপ দাবী করেন, এই অভিযোগ মিথ্যা। আদালতে তিনি জানান, অ্যাম্বারকে তিনি মারধোর করেননি বরং অ্যাম্বারের হাতেই তিনি নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। অ্যাম্বার তার সঙ্গে চিৎকার করতেন, খারাপ ব্যবহার করতেন। এতেও শান্ত না হলে গায়ে হাত তুলতেন। এমনকি ঝগড়ার পর একদিন বাথরুমের মেঝেতে ঘুমাতে হয়েছে বলে জানান জনি ডেপ।

অ্যাম্বার হার্ড ও জনি ডেপের পরিচয় হয় ২০১১ সালে ‘দ্য রাম ডায়েরি’ ছবির সেটে। সেখান থেকেই তাদের ভালো লাগা, ভালোবাসা। এরপর ২০১৫ সালে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের ১৫ মাস পরেই আদালতে ডিভোর্সের আবেদন করেন অ্যাম্বার। ২০১৭ সালে তাদের ডিভোর্সের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। বিবিসি