চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অস্ত্র-যৌন নিগ্রহের মামলায় ‘বার্সা’ খেলোয়াড়ের জেল

আরদা তুরানকে আড়াই বছরেরও বেশি জেলসাজা দিয়েছেন তুরস্কের এক আদালত। বার্সেলোনায় দুই মৌসুম খেলার পর গতবছর ধারে ফুটবল ক্লাব বাসাখেইরে গেছেন এ তুর্কি মিডফিল্ডার।

অভিযোগ, তুরান ভেঙেছেন এক গায়কের নাক। যার স্ত্রীকে নিয়ে করেছেন অশ্লীল মন্তব্যও। সেখানেই থেমে থাকেননি। হাসপাতালে গিয়ে ছুঁড়েছেন গুলি। ছড়িয়েছেন আতঙ্ক।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের অক্টোবরে এক নাইটক্লাবে গায়ক বার্কে শাহিনের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে যান তুরান। শাহিনের স্ত্রীকে নিয়ে তার কটূক্তি করাকে ঘিরেই ঝগড়ার সূত্রপাত। মারামারির এক পর্যায়ে গায়কের নাক ভেঙে দেন ৩২ বছর বয়সী ফুটবলার।

বিজ্ঞাপন

ভাঙা নাক নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন শাহিন। সেখানেও হানা দেন তুরান। পিস্তল নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে ছোঁড়েন গুলি। সৃষ্টি হয় আতঙ্ক।

অবৈধভাবে অস্ত্র বহন, আতঙ্ক ছড়ানো, উদ্দেশ্যমূলক ভাবে মারামারি ও যৌন নিগ্রহের সেসব দায়ে বুধবার তুরানকে দুই বছর আট মাস ১৫ দিনের জেল দেন আদালত। সঙ্গে জরিমানা করা হয়েছে ২৫ লাখ টার্কিশ লিরা (৩,৫০,৬৫৮ পাউন্ড)।

জেল হলেও কারাগারে থাকতে হচ্ছে না তুরানকে। তুরস্কের আইন অনুযায়ী, প্রথমবারের মতো এ ধরনের অপরাধ করায় আপাতত বেঁচে যাচ্ছেন এ মিডফিল্ডার। তবে আগামী ৫ বছরের মধ্যে কোনো ধরনের অপরাধ করলে বড় রকমের শাস্তি পেতে হবে তাকে।

২০১৫ সালে ৩৪ মিলিয়ন ইউরোতে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে তুরানকে দলে টানে বার্সা। দুই মৌসুম থাকলেও সেখানে ৫৫টির বেশি ম্যাচ খেলা হয়নি তার। পরে ২০১৮ সালে দুই বছরের জন্য ধারে ইস্তামবুল বাসাখেইর ক্লাবে যোগ দেন তুরান।

Bellow Post-Green View