চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘অশুভ আত্মার ভয়ে’ সরানো হলো হ্যারি পটারের সব বই

ঔপন্যাসিক জে কে রাওলিংয়ের বিশ্বখ্যাত উপন্যাস সিরিজ হ্যারি পটার পড়া বিপজ্জনক, ভূতের ওঝা বা এক্সরসিস্টদের এমন পরামর্শে যুক্তরাষ্ট্রের একটি ক্যাথলিক স্কুল থেকে এ সিরিজের সব বই সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশভিলে অবস্থিত সেইন্ট এডওয়ার্ড ক্যাথলিক স্কুল নামের ওই বেসরকারি স্কুলের কর্তৃপক্ষের আশঙ্কা, বইগুলোতে যেসব মন্ত্র এবং অভিশাপবাক্য রয়েছে সেগুলো বাস্তব এবং এগুলো কোনো মানুষ পড়লে অশুভ আত্মা চলে আসার ঝুঁকি রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অন্তত এমনটাই জানিয়েছেন স্কুলটির দায়িত্বে থাকা প্যাস্টর রেভারেন্ড ড্যান রিহিল।

ন্যাশভিলের স্থানীয় পত্রিকা দ্য টেনেসিয়ান জানিয়েছে, সেইন্ট এডওয়ার্ড ক্যাথলিক স্কুলে প্রি-কিন্ডারগার্টেন থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান করা হয়। স্কুলের সব শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বাবা-মাকে ই-মেইল পাঠিয়ে প্যাস্টর জানিয়েছেন, তিনি সম্প্রতি বেশ কয়েকজন এক্সরসিস্টের সঙ্গে কথা বলেছেন, যারা স্কুলের পাঠাগার থেকে হ্যারি পটারের সবগুলো বই অপসারণের পরামর্শ দিয়েছেন তাকে।

বিজ্ঞাপন

ই-মেইলে তিনি লিখেছেন: ‘এই বইগুলোতে ভালো এবং মন্দ দুই ধরনের যাদুমন্ত্রের কথা বলা আছে, বইয়ের ভাষায় যেগুলো সত্যি নয়। কিন্তু বস্তুত কথাটি এক ধরনের চালাকি এবং ধোঁকাবাজি। বইগুলো যেসব অভিশাপবাক্য এবং মন্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলো সব আসল। এগুলো কোনো মানুষ পড়লে অশুভ আত্মা বাস্তব জগতে চলে আসতে পারে।’

১৯৯৭ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত বেস্টসেলিং বইয়ের এই সিরিজে রয়েছে হত্যা করার অভিশাপমন্ত্র ‘আভাডা কাডাভরা’, ভয়াবহ নির্যাতন করার অভিশাপমন্ত্র ‘ক্রুশিও’ এবং অন্যের কর্মকাণ্ড নিয়ন্ত্রণের জন্য মন্ত্র ‘ইমপেরিও’। এছাড়াও আরও বহু মন্ত্রের উল্লেখ রয়েছে বইগুলোতে।

এ বিষয়ে ন্যাশভিল অঞ্চলের ক্যাথলিক কর্তৃপক্ষের সুপারিনটেনডেন্ট রেবেকা হ্যামেল দ্য টেনেসিয়ানকে জানান, রেভারেন্ড রিহিলের কাছে একজন অভিভাবক প্রথম হ্যারি পটার সিরিজে উল্লিখিত যাদুমন্ত্রের বিষয়ে জানতে চেয়েছিলেন। তারপরই কয়েকজন এক্সরসিস্টের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন তিনি, এবং তারপর বইগুলো সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্তের কথা ই-মেইলে সব অভিভাবককে জানান।

হ্যামেল বলেন, এই ধরনের আচরণ করা রিহিলের এখতিয়ারে রয়েছে। কেননা নিজ ধর্মভিত্তিক স্কুলের কল্যাণের জন্য এমন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়ার বিধিসম্মত অধিকার প্রত্যেক প্যাস্টরের আছে।

ইতোমধ্যে স্কুলের গ্রন্থাগার থেকে বইগুলো সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পত্রিকাটি।

Bellow Post-Green View