চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অভিযোগ গুরুতর, ব্যবস্থা নিন

দেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবি উত্থাপন ও ধর্মঘট আহ্বানের পরের দিন তা নিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বাংলাদেশে ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তার নিশ্চিত মনে হয়েছে, এটি দেশের ক্রিকেটকে নিয়ে একটি বিশেষ মহলের পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র এবং আসন্ন ভারত সফর বানচালের জন্যই তা করা হচ্ছে। তিনি দাবি করেছেন, আগে থেকে ক্রিকেটাররা বোর্ডের কাছে কোনো দাবি না দিয়ে বা আলোচনা না করেই ধর্মঘটে গেছেন। বললে, তাদের সব দাবি মেনে নিতেন।

পাপন মনে করছেন, এ ধর্মঘটে ক্রিকেটকে ক্ষতিগ্রস্ত করা হয়েছে, দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। তাই যারা এর পেছনে কলকাঠি নাড়ছে তাদেরকে আগে খুঁজে বের করা হবে। কিছুদিনের মধ্যেই সব প্রকাশ করা হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

আমরা এরই মধ্যে জেনেছি, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের এই ধর্মঘটে পুরো ক্রিকেট বিশ্বেরই আলোচনার বিষয় হয়েছে। ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসিসহ আঞ্চলিক সংস্থাগুলোও বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে। সরাসরি স্বীকার না করলেও নিজ দেশে সফরের আগে এমন ঘটনায় ‘বেশ চিন্তিত’ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডও।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু বিসিবি প্রধানের এসব অভিযোগ যদি সত্যি হয়, তাহলে তা হালকাভাবে দেখার কোনো সুযোগ নেই। অতি দ্রুত এই ষড়যন্ত্রের পেছনে যারা আছে, তাদেরকে খুঁজে বের করতে হবে। কেননা সম্প্রতি কয়েকটি দেশেই খেলোয়াড় এবং বোর্ডের লড়াইয়ে সেইসব দেশের ক্রিকেটকে ক্ষতিগ্রস্ত হতে দেখেছি আমরা। তাই ক্রিকেটকে বাঁচাতে কঠোর ব্যবস্থা নিতেই হবে।

তবে এটাও ঠিক, শীর্ষ ক্রিকেটারা তাদের দাবি জানানোর ক্ষেত্রে সঠিক প্রক্রিয়া অনুসরণ করেনি বলে তা উপেক্ষা করা উচিৎ হবে না। গুরুত্বের সাথে সেইসব দাবি বিবেচনায় নিতে হবে। নিশ্চয়ই তাদের চাওয়ার পেছনে যৌক্তিকতা আছে। তাই তাদের সঙ্গে বসেই সমাধানসূত্র বের করতে হবে। যদিও বিসিবি প্রধান বলেছেন, আলোচনার পথ খোলা আছে।

অবশ্য আরেকটা বিষয় অনেকের মতো আমাদের কাছেও অস্পষ্ট; তা হলো এই আন্দোলনে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার অনুপস্থিতি। যিনি এখনো বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক এবং অন্যতম সিনিয়র খেলোয়াড়। তিনি জানিয়েছেন, তাকে এই আন্দোলন নিয়ে কিছুই জানানো হয়নি। কিন্তু তাকে কেন জানানো হলো না? যদিও মাশরাফী ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ক্রিকেটারদের দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। ধর্মঘট ডাকা ক্রিকেটারদের এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দেওয়ার প্রয়োজন আছে বলে আমরা মনে করি।

এতো কিছুর পরও আমাদের আশাবাদ, এই সংকটের দ্রুতই সমাধান হবে। ক্রিকেটারাও তাদের প্রিয় মাঠে ফিরে যাবেন। তবে সতর্ক থাকতে হবে কেউ যেন ঘোলা জলে নিজের স্বার্থ উদ্ধারে ক্রিকেটারদের ব্যবহার না করে।

Bellow Post-Green View