চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

৬০ বছরের বাবু!

শনিবার (২২ আগস্ট) অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবুর ৬০ বছর পূর্ণ হলো…

নাটক ও চলচ্চিত্রে সমান যাতায়াত তার। নিয়মিত ছোট পর্দায় দেখা গেলেও আহা!, স্বপ্নডানায়, দারুচিনি দ্বীপ, মেড ইন বাংলাদেশ, মনপুরা, অজ্ঞাতনামা ও হালদার মতো ছবিতে তার অভিনয় স্মরণীয় হয়ে থাকবে বাঙালি দর্শকের মনে!  এই বয়সে এখনো যে কোনো চরিত্রে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারা অভিনেতার নাম ফজলুর রহমান বাবু।

শনিবার (২২ আগস্ট) এই অভিনেতার ৬০ বছর পূর্ণ হলো। জন্মদিনের এই বিশেষ দিন উপলক্ষ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভক্ত অনুরাগী আর সহকর্মীদের শুভেচ্ছায় সিক্ত হচ্ছেন দর্শক নন্দিত এই অভিনেতা।

বিজ্ঞাপন

এদিন দুপুরে চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে কথা হয় ‘অজ্ঞাতনামা’ খ্যাত এই তুখোড় অভিনেতার। জানালেন, প্রতিবছরই এই দিনটিতে যেসব ভক্ত অনুরাগীদের শুভেচ্ছায় সিক্ত হন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা নেই। বললেন, আমরা তো মানুষের জন্যই কাজ করি, তারা যদি আমাদের কাজ পছন্দ করে আনন্দিত হন- মনে রাখেন তাতেই আমাদের সার্থকতা।

বিজ্ঞাপন

জন্মদিনে বিশেষ কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা জানতে চাইলে এই অভিনেতা বলেন, করোনাকালে তো ঠিক মতো বের হওয়ারই সুযোগ নেই। শুরু থেকে সুরক্ষার কথা ভেবে কাজও করিনি। খুব জরুরী কয়েকটা কাজের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছি। তবে আজকের দিনে পরিবারকে নিয়ে বাইরে ঘুরতে বের হবো। সবাই একসঙ্গে বাইরে খাওয়ার পরিকল্পনা আছে।

একফাঁকে গুণী এই অভিনেতা বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পোস্ট করছেন, তাদের প্রত্যেকের প্রতি আমার অশেষ কৃতজ্ঞতা।

এদিকে ফজলুর রহমান বাবুর জন্মদিনটি নিয়ে অনেক ভক্ত অনুরাগীদের মধ্যে আছে বিভ্রান্তি। গুগল সার্চে এই অভিনেতার জন্ম তারিখ দেখায় ১৪ জুলাই ১৯৬০, এবং উইকিপিডিয়াতে আছে ২২ আগস্ট ১৯৬০! অনেকে জুলাই মাসেও এই অভিনেতাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

বিভ্রান্তি দূর করে এরআগে বাবু জানিয়েছিলেন, আমার জন্মদিন ১৪ জুলাই নয়। আমার অফিশিয়াল জন্ম তারিখ হচ্ছে ২২ আগস্ট ১৯৬০। উইকিপিডিয়াতে আমার জন্ম তারিখ ঠিক আছে, কিন্তু গুগলে আমার জন্ম তারিখটা কীভাবে যেন ১৪ জুলাই লেখা। এটা আমি বহুদিন আগে থেকে দেখছি। গুগল ও উইকিতে-দুই জায়গাতে দুই ধরনের তারিখ থাকায় মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি হচ্ছে।

করোনাকালে নাটকে এই অভিনেতা দেখা না গেলেও মুক্তির প্রতীক্ষায় আছে তার পাপ-পুণ্য, বিশ্বসুন্দরী, নোনা জলের কাব্য, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালির মতো আরো কয়েকটি চলচ্চিত্র। এছাড়া চুক্তিবদ্ধ হওয়া ছবির মধ্যে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে শ্যাম বেনেগালের ছবি সহ কলকাতার সাথে আরো দুটো ছবি, শিশু একাডেমির একটা ছবি ‘উড়াল’, মীর সাব্বিরের পরিচালনায় সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত ছবি ‘রাত জাগা ফুল’।