চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

১০ সেপ্টেম্বর থেকে অমির ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’

করোনার কারণে কয়েকমাস প্রচার বন্ধ ছিল নির্মাতা কাজল আরেফিন অমির জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘ব্যালেচর পয়েন্ট’ সিজন-২। এ নাটকের জন্য যেসব দর্শক মুখিয়ে ছিলেন তাদের জন্য সুখবর হচ্ছে, মোশন রকের ব্যানারে ১০ সেপ্টেম্বর ৫৮ পর্ব থেকে আবারও ‘সিজন ২’ প্রচারে আসছে।

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে কাজল আরেফিন অমি এ তথ্য জানিয়ে বলেন, ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ধ্রুব টিভির ইউটিউবে সপ্তাহে (তিনদিন) বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার রাতে ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সিজন ২ প্রচারে আসবে। ১৫ টির মতো পর্ব প্রচারের পর ‘সিজন ২’ শেষ হবে।

বিজ্ঞাপন

সিরিয়ালটির প্রথম ও দ্বিতীয় সিজন ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়। এতে অভিনয় করেন মিশু সাব্বির, তৌসিফ মাহবুব, শামীম হাসান সরকার, জিয়াউল হক পলাশ, মনিরা মিঠু, সাবিলা নূর, নাদিয়া মিম। আরও ছিলেন মারজুক রাসেল, চাষী আলম, তামিম মৃধা, সানজানা রিয়া, মুসাফির শোয়েব বাচ্চু প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

সিরিয়ালটির ‘সিজন ২’ শেষ হলেই দর্শক চাহিদার কারণে তৃতীয় সিজন প্রচারে আসবে বলেও জানান অমি। তিনি বলেন, যে সপ্তাহে ‘সিজন ২’ শেষ হবে, পরের সপ্তাহেই ‘সিজন ৩’ প্রচারে আসবে। নতুন সিজনের জন্য প্রথম লটে বেশ কিছু পর্বের শুটিং এরই মধ্যে শেষ করেছি।

নতুন সিজন নিয়ে অমি বলেন, ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এর শুটিংয়ে আমরা প্রচুর মজা করি। এবার যখন শুটিংয়ে ছিলাম ভুলেই গিয়েছিলাম দেশে করোনা রয়েছে। তবে আমরা সাবধানতা অবলম্বন করেই শুটিং করেছি। উত্তরার শুটিং বাড়িতে কাজের আগে পুরো বাড়ি জীবাণুনাশক মেডিসিন দিয়ে পরিস্কার করে শুটিং করেছি।

প্রথম সিজনের চেয়ে দ্বিতীয় সিজন দিয়ে বেশি সাড়া পেয়েছেন কাজল আরেফিন অমি। বললেন, প্রথম সিজনে ছিল গ্রাম থেকে ঢাকায় এসে একত্রিক হওয়ার ঘটনা। ‘সিজন ২’তে ছিল বিভিন্ন কর্মকাণ্ড এবং প্রত্যেকের চরিত্রের বিস্তৃতি। এজন্য দর্শক পছন্দ করেছে। তবে নতুন সিজনের বাড়তি চমক প্রত্যেকের এ সময়ের অবস্থা ও তাদের ভবিষ্যৎ পেশাগত জীবনে নানান সম্ভাবনা দেখানো।

অমি বলেন, আগের চরিত্রগুলো ঠিকঠাক থাকলেও এবার নতুন কিছু বিষয় যোগ হবে। দেখা যাবে নতুন কয়েকজন শিল্পীকে। নাটকের বিষয় বস্তুতেও পরিবর্তন আসবে। আগের চেয়েও বেটার কিছু দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে।

তিনি বলেন, আগের দুই সিজন শতভাগ সাফল্যে পেয়েছি। মানুষ এই সিরিয়াল কি পরিমাণে ভালোবাসে সেটা বলে বোঝাতে পারবো না। তাদের নিরাশ করলে আমার নিজেরই খারাপ লাগবে। চেষ্টা করছি ১০০ তে ১০০-ই এফোর্ড দেয়ার। বাকিটা আল্লাহ ভরসা।