চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সৌদি নারীরা দেখবে নিকি মিনাজের কনসার্ট, কিন্তু…

সৌদিতে এখন পরিবর্তনের হাওয়া। সেখানে সম্প্রতি বৈধতা পেয়েছে নারীদের গাড়ি চালানো, স্টেডিয়ামে যাওয়া এবং কনসার্ট দেখার বিষয়টিও…

সৌদি আরবে ‘জেদ্দা ওয়ার্ল্ড ফেস্ট’-এ অংশ নিতে যাচ্ছেন আমেরিকার পপস্টার নিকি মিনাজ। এমন সংবাদ প্রকাশের পর থেকেই সৌদিতে সোশাল মিডিয়ায় রীতিমত তোলপাড়, শুরু হয়েছে বিতর্ক। বহুজন প্রশ্ন তুলছেন যে, নিকি মিনাজের পোশাক এবং খোলামেলা গানের বক্তব্য রক্ষণশীল আরবের সঙ্গে মানানসই নয়। তার উপর নিকি মিনাজের কনসার্ট টি দেখতে সৌদি নারীদের ‘ড্রেস কোড’ বেঁধে দিয়েছে আয়োজকরা! আর এই নিয়ে ক্ষুব্ধ সৌদি নারীরা।

সৌদিতে এখন পরিবর্তনের হাওয়া। সেখানে সম্প্রতি বৈধতা পেয়েছে নারীদের গাড়ি চালানো, স্টেডিয়ামে যাওয়া এবং কনসার্ট দেখার বিষয়টিও। তারই ধারাবাহিকতায় আসছে ১৮ জুলাই কিং আবদুল্লাহ স্পোর্টস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিতব্য ‘জেদ্দা ওয়ার্ল্ড ফেস্ট’-এ নিকি মিনাজের কনসার্টে দর্শক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সৌদি আরবের বহু নারী।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু এই কনসার্টে যাওয়ার আগে নারীদের পর্দা করার (আবায়া পরার) আহ্বান জানিয়েছে আয়োজকরা। আর এতেই নিজেদের ক্ষোভের কথা সোশাল মাধ্যমে জানাচ্ছেন সেখানকার স্থানীয় নারীরা।

নিকি মিনাজের মতো খোলামেলা পোশাক পরা একজন শিল্পীর পারফর্ম দেখতে পর্দা করে যাওয়ার আহ্বান জানানোকে ভণ্ডামি (হিপোক্রেসি) বলেও উল্লেখ করেছেন একাধিক নারী।

বিবিসির একটি রিপোর্টে সৌদি আরবের এক নারীর টুইট ভিডিও বার্তার উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, নিকি মিনাজ তার নিতম্ব ঝাঁকিয়ে গান গাইবেন আর তার সব গানই যেখানে যৌনতা ঘিরে, আর এরপরও আপনি (আয়োজক) এই কনসার্টে যেতে আমাকে আবায়া পরা বাধ্যতামূলক করে রাখবেন, তা কী করে হয়?

ক’দিন আগেই সৌদি আরবে ‘হালাল নাইট ক্লাব’ ইস্যুতে সরব হয়েছিলো সোশাল মিডিয়া, তারআগে সেখানে প্রথমবার সিনেমা হল স্থাপনের বিষয়টিও ছিলো আলোচনার চূড়ান্তে। এবার সব শ্রেণির মানুষ মেতেছেন নিকি মিনাজের কনসার্টকে ঘিরে।

আয়োজকদের ‘মূর্খ’ জানিয়ে সোশাল মিডিয়ায় এক সৌদি নাগরিক লিখেছেন, নিকি মিনাজের সাথে যোগাযোগ করার আগে তার সম্পর্কে গুগলে সার্চ দিয়ে খোঁজ খবর নিতে পারতেন আয়োজকরা!

এদিকে এই কনসার্টকে ঘিরে ধর্মীয় আবেগ ক্ষুণ্ন হবে, এমন প্রশ্ন তুলে আয়োজকদের প্রতি নিন্দা জানিয়েছেন অনেকে। মক্কা নগরীর পাশে নিকি মিনাজের মতো শিল্পীকে নিয়ে এসে নাচ গান করানোকে দুঃখজনক সিদ্ধান্ত বলেও মন্তব্য করেছেন সৌদি আরবের বহু নাগরিক।