চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সোবার্সের ৫০ বছর পুরনো রেকর্ডে সঙ্গী স্মিথ

মাত্র ২৬ রান দূরে থেকে মেলবোর্ন টেস্ট শেষ করেছিলেন স্টিভেন স্মিথ। অপেক্ষা ছিল দারুণ একটি মাইলফলকের। সিডনিতে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হল না। অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক রানফোয়ারার ধারাবাহিকতায় ছুঁয়ে ফেললেন স্যার গ্যারি সোবার্সের ৫০ বছর বয়সী সেই রেকর্ডকে।

দ্বিতীয় দ্রুততম ১১১ ইনিংসে টেস্টে ৬ হাজার রান তোলার কৃতিত্ব এখন সোবার্সের সঙ্গী স্মিথও। ক্যারিবীয় কিংবদন্তি ৬ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন ১৯৬৮ সালে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। মাত্র ৬৮ ইনিংসে ৬ হাজার রান করে সবার উপরে কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান স্যার ডন ব্র্যাডম্যান।

বিজ্ঞাপন

রেকর্ড ছোঁয়ার দিনে অ্যাশেজের শেষ টেস্টে আরও একবার ইংলিশদের কাঁদানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন স্মিথ। সঙ্গে আছেন উসমান খাজা। সফরকারীদের প্রথম ইনিংসে দেওয়া ৩৪৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সুবিধাজনক অবস্থানে স্বাগতিকরা। আট উইকেট হাতে নিয়ে পিছিয়ে আছে ১৫৩ রানে।

বিজ্ঞাপন

২৩৩ রানে প্রথম দিন শেষ করা ইংলিশরা বাকি পাঁচ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ১১৩ রান। আগের দিন ৫৫ রানে অপরাজিত থাকা ডেভিড মালান দ্বিতীয় দিনের শুরুতে আউট হয়েছেন ৬২ রানে। পরে অলরাউন্ডার টম কুরানের সঙ্গে ৪৩ রানের জুটি গড়ে ইংল্যান্ডকে তিনশোর বেশি স্কোর পাইয়ে দেন আরেক অলরাউন্ডার মঈন আলি। মঈনের ব্যাটে এসেছে ৩০, আর কুরান করেছেন ৩৯ রান। শেষদিকে স্টুয়ার্ট ব্রডের ৩১ সফরকারীদের দাঁড় করায় সম্মানজনক জায়গায়।

৪ উইকেট নিয়ে অজিদের সেরা বোলার প্যাট কামিন্স। সমান দুটি করে উইকেট শিকার মিচেল স্টার্ক ও জস হ্যাজেলউডের। আরেকটি উইকেট গেছে নাথান লায়নের পকেটে।

ইনিংসের শুরুতে ধাক্কা খেয়েছিল অজিরাও। রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ওপেনার ক্যামেরন ব্যানক্রফট। সেখান থেকেই শুরু ইংলিশদের হতাশা। খাজার সঙ্গে ৮৫ রানের জুটি গড়ে সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার যখন সাজঘরে ফিরেছেন, তখন তার সংগ্রহ ৫৬। বাকিটা দিনটা হেসে খেলে পার করে দেন অধিনায়ক স্মিথ ও খাজা। তৃতীয় দিনে ষষ্ঠ শতকের স্বপ্নে মাঠে নামবেন খাজা। অপরাজিত ৯১ রানে। আর স্মিথ করেছেন ৪৪ রান।