চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সেগুনবাগিচায় মির্জা আব্বাসের প্রচারণায় ধাওয়া

সেগুনবাগিচায় নির্বাচনী প্রচারণায় এসে ধাওয়ার মুখে পড়েছেন মির্জা আব্বাস। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় রিপোর্টার্স ইউনিটির সামনে থেকে ধানের শীষের মিছিলসহ প্রচারণা শুরু করে শিল্পকলা একাডেমি, দুর্নীতি দমন কমিশন হয়ে পুরনো পল্টনের কালভার্ট সড়কের দিকে যাওয়ার পথে একদল যুবকের ধাওয়া খান তিনি ও তার প্রচারণা দল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মির্জা আব্বাস লিফলেট বিতরণ করছিলেন। এমন সময় একদল যুবক লাঠিসোটা নিয়ে তেড়ে আসে। তখন মির্জা আব্বাসের প্রচারণা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

এর আগে প্রচারণার শুরুতে মির্জা আব্বাস কথা বলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে৷ তিনি বলেন, ‘নিজ বাড়ির সামনেও নির্বাচনী পোস্টার লাগাতে পারছি না৷ এর চেয়ে কষ্টের আর কী হতে পারে!’

Advertisement

তিনি বলেন, ‘সবখানে বাধার মুখে পড়ছি। আমাদের প্রোগ্রাম ছিলো বিজয়নগর। রাজমনি থেকে শুরু করার কথা ছিল৷ ওখানে গিয়ে দেখি শত শত পুলিশ ব্যারিকেড।’

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আপনারা দেখুন সবখানে আমার প্রতিপক্ষের পোস্টার৷ আমার সব পোস্টার বাড়িতে পড়ে আছে। একটা পোস্টারও লাগাতে পারছি না। এই দেশে কীভাবে আমরা বেঁচে থাকবো? আমার মনে হয় রোহিঙ্গাদের মতো মর্যাদাও এই দেশের জনগণের নাই।’বিএনপি-মির্জা আব্বাস

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘এখন থেকে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা প্রয়োজন। ১৫ তারিখ যে সেনাবাহিনী নামানোর কথা সেটা এখন ২৪ তারিখে কেন চলে গেল?’

রাষ্ট্রপতির কাছে আপনারা কী বলবেন- প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমরা বলব, দেশ একতরফা নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, আমরা কোনো প্রচারণা চালাতে পারছি না। এখানে কোনো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই। এসবই বলব। তবে রাষ্ট্রপতি সাক্ষাত করেন কিনা সেটা দেখার বিষয়।’