চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সালমান ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে দাবাং নির্মাতার গুরুতর অভিযোগ

গেল রবিবার বলিউড তারকা অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের রহস্যজনক মৃত্যুর পর থেকেই তার মৃত্যুকে ঘিরে উঠে আসছে একের পর এক প্রশ্ন। একই সাথে ঘটনার তদন্তে ইতিমধ্যেই উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য। যেগুলোর অধিকাংশই প্রকাশ পাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মারফত।

তবে সুশান্তের আত্মহত্যার কারণ উদঘাটন করতে গিয়ে এবার বেরিয়ে এলো আরেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। সম্প্রতি সুশান্তের মৃত্যুর মধ্যেই পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের ভাই অভিনব কাশ্যপ একাধিক গুরুতর অভিযোগ এনেছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের বিরুদ্ধে। শুধু সালমান নয়, তার দুই ভাই আরবাজ খান ও সোহেল খানের বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেছেন অভিনব কাশ্যপ।

বিজ্ঞাপন

তিনি দাবি করেছেন, ‘দাবাং’ এর সাফল্যের পর অর্থাৎ বছর দুয়েক আগে ‘দাবাং টু’ তৈরিতে হাত দেন। ওই সময় সালমান খানের দুই ভাই আরবাজ খান এবং সোহেল খান তাঁর ক্যারিয়ার ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লেগেছিলেন বলে অভিযোগ করেন অভিনব।

বিজ্ঞাপন

শুধু তাই নয়, অভিনব তাদের কথামতো না চললে, তাকে খুন করা হবে এবং পরিবারের মহিলা সদস্যদের ধর্ষণ করা হবে বলেও নাকি হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

অভিনবর এমন অভিযোগের পর নড়েচড়ে বসেছেন সালমান ও তার পরিবার। মিথ্যাচার ছড়ানো দায়ে আইনি পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছেন বলে বুধবার হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন আরবাজ খান।

একই সাথে সালমান খানের বাবা সেলিম খানও বিষয়টিতে বিরক্তি প্রকাশ করে মুম্বাই টাইমসকে জানিয়েছেন,’হ্যাঁ, আমরাই তো সব খারাপ করেছি। আগে আপনারা গিয়ে ওনার সিনেমাগুলো দেখুন, তারপর আমরা কথা বলব। উনি নিজের বক্তব্যে আমার নামও তুলেছেন, আমার মনে হয় উনি বোধহয় আমার বাবার নাম জানেন না। ওনার নাম ছিল রশিদ খান। ওনার আমার বাবা ও ঠাকুরদার নামও উল্লেখ করা উচিত ছিল। উনি যা করতে চাইছেন করতে দিন। আমি ওনার কথার উত্তর দিয়ে নিজের সময় নষ্ট করতে চাইনা।

মূলত সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর বলিউডের নেপোটিজমের কথা উঠে। তারই প্রেক্ষিতে আলোচনায় উঠে আসে সালমান খানদের নাম।