চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘সহজ’ ক্যাচ ছেড়ে কঠিনগুলো ধরছে টাইগাররা

সিরিজজুড়ে ক্যাচ ফেলার যে মহড়া দিয়ে এসেছে বাংলাদেশ, দ্বিতীয় টি-টুয়েন্টিতে মাহমুদউল্লাহ ক্যাচ ফেলে সে পথে হাঁটার ইঙ্গিতই দিয়েছিলেন। কিন্তু নাঈম, তাসকিন ও মিঠুন দারুণসব ক্যাচ নিয়ে সাফল্য এনে দিয়েছেন বোলারদের।

মঙ্গলবার নেপিয়ারে তিন টি-টুয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয়টিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টস জিতে বোলিং বেছে নিয়েছে বাংলাদেশ। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১০ ওভারে ৮৩ রান দিয়ে কিউইদের ৩ উইকেট তুলেছে টাইগাররা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ঝড়ো গতিতে রান তুলতে শুরু করা নিউজিল্যান্ডের ৪ ওভারে ৩৬ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন তাসকিন। মোস্তাফিজের জায়গায় একাদশে ফেরা পেসারকে প্রথম বলে ছক্কা হাঁকিয়ে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন ফিন অ্যালেন। পরের শটে আকাশে তোলা বল নেমে এলে তালুবন্দি করতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

বিজ্ঞাপন

তাসকিনের ওই ওভারে একটি ছয় হাঁকান মার্টিন গাপটিলও। ওভারের ষষ্ঠ বলে অ্যালেন আরেকবার ছয় মারার চেষ্টা করে ফের বাতাসে বল ভাসান। এবার সুযোগ ফেলেননি নাঈম শেখ। ২ চার এক ছয়ে ১০ করে ফিরতে হয় স্বাগতিক ওপেনারকে।

আরেক ওপেনার গাপটিল স্বভাবসুলভ চালিয়ে খেলছিলেন। সাইফউদ্দিনের বল শর্ট ফাইন লেগ দিয়ে পাঠাতে যেয়ে তাসকিনের দারুণ এক ক্যাচে পরিণত হন। অনেকটা বাতাসে শরীর এলিয়ে বাঁহাতে বল তালুবন্দি করেন তাসকিন।

সিরিজজুড়ে সহজ ক্যাচ ফেলার মহড়ায় এমন একটি দর্শনীয় ক্যাচ, তাসকিন ও সতীর্থদের উল্লাস হল দেখার মতোই, হাসতে হাসতে মাঠ ছাড়েন আউট হওয়া গাপটিলও। ২ চার এক ছয়ে ১৮ বলে ২১ করে ফিরতে হয় তাকে।

গাপটিল আউটের পরের বলে শরিফুলকে উড়িয়ে মারতে যেয়ে মিড উইকেটে মিঠুনের ক্যাচ হন ধারাবাহিক ডেভন কনওয়ে। ২ চারে ৯ বলে ১৫ করে থামতে হয় তাকে। শরিফুলের প্রথম আন্তর্জাতিক উইকেট যেটি।

বিজ্ঞাপন