চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শুরু হচ্ছে বাংলা খেয়াল উৎসব’র দ্বিতীয় আসর

বাংলা সঙ্গীতের শক্তি সবার কাছে পৌঁছে দিতে ৩১ জানুয়ারি চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে বসছে বাংলা খেয়াল উৎসব-২০১৬ এর দ্বিতীয় আসর। চ্যানেল আই ভবনে রোববার সন্ধ্যায় শুরু হওয়া দু’দিনের এ উৎসব চলবে ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টা পর্যন্ত। দ্বিতীয় আসরে এবার আজীবন সম্মাননা পেতে যাচ্ছে সঙ্গীত প্রতিষ্ঠান সংস্কৃতি কেন্দ্র।

বাংলা খেয়ালের প্রচার ও প্রসারে চ্যানেল আইয়ের আয়োজন বাংলা খেয়াল উৎসব-২০১৬ এর দ্বিতীয় আসর। চ্যানেল আই ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরা হলো এবারের উৎসব আয়োজনের বিস্তারিত।

চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ বলেন, ‘আমরা চাচ্ছি বাংলা সঙ্গীতের উৎকর্ষকে সবার কাছে, সার্বজনীনভাবে পৌঁছে দিতে। তারই ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয় এই আসর। আমরা আশা করছি এর মধ্য দিয়ে বাংলা খেয়ালের আরো অনেক বেশি উৎকর্ষ সাধিত হবে, প্রতিটি সঙ্গীত পিপাসু মানুষের কাছে যথেষ্ট গ্রহণযোগ্য হবে।’

৩১ জানুয়ারি শুরু হওয়া রাতব্যাপী আয়োজনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব সঙ্গীতজ্ঞ আজাদ রহমানের তত্ত্বাবধানে বরেণ্য শিল্পীসহ দেশের ৬শ’ নবীন-প্রবীণ শিল্পী অংশ নেবেন বাংলা খেয়াল উৎসবে।

সঙ্গীতজ্ঞ আজাদ রহমান মনে করেন, ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধকে যথাযথ মর্যাদা দেয়ার জন্য সঙ্গীতকর্মে এর থেকে বড় আর কিছু নেই। কারণ পুরো উপমহাদেশের সব গানেই ক্লাসিকেলের প্রভাব রয়েছে।

Advertisement

সংবাদ সম্মেলনে প্রথমবারের মতো বাংলা খেয়াল নিয়ে আয়োজিত উৎসব নিয়ে সাধুবাদ সঙ্গীত গুরুদের।

উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতশিল্পী ড. হারুন অর রশিদ বলেন, বাংলা খেয়াল নিয়ে আজাদ রহমান প্রথমবারের মতো যে চিন্তা করেছেন তা বিরাট একটি ব্যাপার। নিজ ভাষায় উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের উৎসবের যে রূপ তিনি দিয়েছেন, তা পশ্চিমবঙ্গেও এখনো হয়নি বলে মন্তব্য করেন ড. রশিদ।

এই মহতী উদ্যোগ যেনো সার্থক, সফল ও সুন্দর হয় সে কামনা করেন উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতশিল্পী ওস্তাদ করিম শাহাবুদ্দিন। বাংলায় খেয়াল উৎসবের এ উদ্যোগ আরো প্রস্ফুটিত হবে, এই কামনা করেন উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতশিল্পী ডালিয়া নওশিন। অভিনন্দন জানান আরেক শিল্পী অনিল কুমার সাহা। আলোচনায় খেয়ালের গীতরীতির মূল্য তুলে ধরেন ড. অসিত রায়।

নিজের ভাষায় খেয়াল গাওয়ার এমন সুযোগে আনন্দ প্রকাশ করেন সঙ্গীতশিল্পী শাহীন সামাদ। একইভাবে আনন্দিত হয়ে আরেক উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতশিল্পী সালাউদ্দীন আহমেদ বলেন, নিজের ভাষায় খেয়াল গাওয়ার ব্যাপারটা আগে আমাদের দেশে ছিলো না। আজাদ রহমানের এ প্রয়াস অনেক দূর এগিয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

৩১ জানুয়ারি সন্ধ্যায় শুরু হওয়া আয়োজন চলবে রাতভর। পরদিন সকাল ৯টায় পর্দা নামবে চ্যানেল আই বাংলা খেয়াল উৎসবের দ্বিতীয় আসরের। চ্যানেল আইয়ের পর্দায় চলবে উৎসবের সরাসরি সম্প্রচার।