চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

‘শুটিং দেখতে আসা মানুষের কাছে আমরা যেন ভিন গ্রহের বাসিন্দা’

Nagod
Bkash July

নতুন সিনেমায় কাজ করছেন কাজী নওশাবা আহমেদ। সরকারি অনুদান পাওয়া ‘ছায়াবৃক্ষ’ ছবির গুরুত্বপূর্ণ অংশ জুড়ে তিনি। এ ছবিতে তার সহশিল্পী নিরব, অপু বিশ্বাস, সুমিত, শতাব্দী ওয়াদুদ প্রমুখ।

শুটিংয়ে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার কোদালা নামে একটি চা বাগানে অবস্থান করছে নওশাবাসহ পুরো ইউনিট। বন্দর নগরী থেকে আড়াই ঘণ্টার সড়কপথ ধরে যেতে হয়েছে সেখানে।

মুঠোফোনে চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপ করলেন নওশাবা। এ অভিনেত্রী বললেন, এ অঞ্চলের মানুষ আগে তেমন সিনেমার শুটিং দেখে নাই। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ দূর দূরান্ত থেকে শুটিং দেখতে আসছেন। আমরা তো প্রথমে ঠিকমতো শুটিং করতে পারছিলাম না। এখানে এসে বুঝলাম সিনেমার একটা অদ্ভুত শক্তি রয়েছে। যা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র আগ্রহ। এখানে সিনেমা হল নেই। বিনোদন বলতে তারা মোবাইলে নাটক দেখে। সিনেমা দেখতে পারে না বলে ব্যাপক আগ্রহ তাদের।

নওশাবা বলেন, আমরা যারা এখানে শুটিং করছি, এখানকার সাধারণ মানুষের মধ্যে আমরা যেন কী একটা বিষয়! ভিন গ্রহের মানুষ মনে করছে। তারা তাদের বাচ্চাদের নিয়ে আসছে, কোলে দিচ্ছে। দোয়া করে দিতে বলছে। এটা খুবই অন্যরকম অনুভূতি! এখানে অপু দি (অপু বিশ্বাস) রয়েছেন। তার নিরাপত্তা কড়াকড়ির কারণে তার পাশে অনেকে যেতে পারে না। সেজন্য ওরা আমার কাছে আসে। ওদের সঙ্গে এখানে বৌদ্ধ মন্দিরে গিয়েছি। দুর্গা মন্দিরেও যাব। আমি ওদের সঙ্গে মিশে গিয়েছি।

তিনি বলেন, মানুষগুলো খুবই অমায়িক আর সহজসরল। সন্ধ্যার পর এ অঞ্চলে আলো জ্বলে না। কিন্তু আমাদের শুটিংয়ের কারণে এখানে আলো জ্বলছে। এটা দেখতেও ভিড় করছে। বিকেল তিনটে বাজার সঙ্গে সঙ্গে দূর দূরান্ত থেকে মানুষ মানুষ সাইকেল, বাইক বা অন্য যানবাহনে করে শুটিং দেখতে, আমাদের দেখতে আসছে। যখন এই অঞ্চলের মেকাপ নিচ্ছি তখন তারা মিশতে চাচ্ছে, কিন্তু মেকাপ না নিলে তারা দূরে দূরে থাকছে। আমি বিষয়গুলো খুব এনজয় করছি।

নওবাশার মতে, তিনি অভিনয়ের পাগল। ‘ঢাকা অ্যাটাক’ মুক্তির পর অনেকগুলো ছবিতে কাজের অফার পেলেও অভিনয় করার সুযোগ ছিল না বলে বেশিরভাগ ছবি হাসিমুখে না করে দিয়েছেন। বললেন, শুধুমাত্র স্ক্রিনে থাকার জন্য আমি ছবি করি না। আমার চরিত্রের একটা জার্নি থাকতে হবে। এছাড়া চরিত্রে গভীরতা এবং গল্পের একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ হতে পারলেই সেই কাজগুলো আমি করি। ‘ছায়াবৃক্ষ’ তেমনই একটি ছবি। আমার চরিত্রে প্রচুর কাজ। শেষ পর্যন্ত গল্পটাকে এ চরিত্র টেনে নিয়ে যায়।

অনুপম কথাচিত্র প্রযোজিত ‘ছায়াবৃক্ষ’ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার অপু বিশ্বাস ও নওশাবা একই ছবিতে কাজ করছেন। মূলধারার ছবির জনপ্রিয় নায়িকা অপুর সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন জানতে চাইলে নওশাবা বলেন, সিনেমার নায়িকা হিসেবে অপু বিশ্বাস হিউজ স্টার। একসঙ্গে কাজ না করলে হয়তো বুঝতাম না। তার ব্যক্তিগত ব্যাপারে মানুষের অনেক বেশি আগ্রহ। তার ছেলে (আব্রাম খান জয়) নিয়ে এসেছে কিনা, সে কী পোশাক পরে, কী খায় এসব নিয়ে মানুষের জানার আগ্রহের শেষ নেই! মানুষের এতো কৌতূহল দেখে আমি শুধু হা করে এ অঞ্চলের মানুষদের কথা শুনি। খুব উপভোগ করছি বিষয়গুলো।

বন্ধন বিশ্বাস পরিচালিত ‘ছায়াবৃক্ষ’ ছবির পুরো অংশ জুড়ে চা বাগানের শ্রমিকদের জীবন যাপন ধরা দেবে। তাদের জীবনের সুখ দুঃখ হাসি কান্না, নিজেদের মধ্যে কোন্দল সবকিছুই ফুটে উঠবে এ ছবির মাধ্যমে। ‘ছায়াবৃক্ষ’র সংগীত পরিচালনায় ইমন সাহা এবং কাহিনি, সংলাপ ও চিত্রনাট্য করছেন তানভীর আহমেদ সিডনি। প্রযোজনা করছেন অনুপম কুমার বড়ুয়া।

BSH
Bellow Post-Green View
Bkash Cash Back