চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেকর্ড দামে বিক্রি ম্যারাডোনার ‘হ্যান্ড অব গড’ জার্সি

১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কিংবদন্তি ফুটবলার ডিয়েগো ম্যারাডোনার পরিহিত জার্সিটি নিলামে ৯.২৮ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি হয়েছে। এই জার্সিটি পরেই তিনি ‘হ্যান্ড অব গড’ ও ‘গোল অব দ্য সেঞ্চুরি’ খ্যাত ঐতিহাসিক গোল দুটি করেন।

গত বুধবার লন্ডনের সোথেবি’স- এ আয়োজিত নিলামে সর্বকালের রেকর্ড ভেঙে ম্যারাডোনার জার্সিটি বিক্রি হয়।

Reneta June

এর আগে ক্রীড়াঙ্গনে কোনো খেলায় পরা জার্সির নিলামে সর্বোচ্চ মূল্য উঠেছিল ৫.৬৪ মিলিয়ন ডলার। ২০১৯ সালে নিউ ইয়র্ক ইয়াঙ্কিজ কিংবদন্তি বেব রুথের বেসবল জার্সিটি এই দামে বিক্রি হয়েছিল। একই বছর নিউ ইয়র্কে হাতে আঁকা অলিম্পিক ইশতেহার ৮.৮ মিলিয়ন ডলারে নিলামে বিক্রি হয়।

বিজ্ঞাপন

১৯৮৬ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২-১ গোলে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। সেই ম্যাচে ম্যারাডোনা করা দুটি গোলই স্থায়ী জায়গা করে নেয় ইতিহাসের পাতায়। প্রথমটি ছিল বিখ্যাত ‘হ্যান্ড অফ গড’ গোল। ইংল্যান্ডের গোলরক্ষক পিটার শিলটনকে পাশ কাটিয়ে বলের গতিপথ পাল্টে দেন আর্জেন্টাইন গ্রেট।

২০২০ সালের নভেম্বরে মারা যাওয়া ম্যারাডোনা বহু বিতর্কিত গোলটি নিয়ে বলেছিলেন, ‘গোলটি ছিল ম্যারাডোনার সামান্য মাথা এবং ঈশ্বরের সামান্য হাত দিয়ে করা।’

ম্যাচে ২-১ ব্যবধানে জিতে ইংলিশ দলের স্টিভ হজের সাথে বিখ্যাত জার্সিটি অদলবদল করেছিলেন ম্যারাডোনা। যা গত ২০ বছর ম্যানচেস্টারে অবস্থিত ইংল্যান্ডের জাতীয় জাদুঘরে সংগৃহীত রয়েছে। সেবার ম্যারাডোনার নেতৃত্বে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপের স্বাদ পেয়েছিল।

হাল্কা নীল রঙের স্ট্রাইপকরা নীল জার্সিটি দীর্ঘদিন নিজের কাছে আগলে রাখা হজ আগে জানিয়েছিলেন, ‘এমন একটি জার্সির গর্বিত মালিক ছিলাম যা ফুটবলবিশ্ব, আর্জেন্টিনার জনগণ ও ইংল্যান্ডের মানুষের কাছে গভীর সাংস্কৃতিক অর্থ বহন করে।’