চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ম্যাচিউরিটি এসেছে, ব্যক্তিজীবন ও পেশা সবখানে: বাপ্পী

চলচ্চিত্রে ৯ বছর পেরিয়ে ১০-এ পা রেখেছেন চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী। জাজ মাল্টিমিডিয়ার প্রযোজনায় দেশের প্রথম ডিজিটাল সিনেমা ‘ভালোবাসার রঙ’র মাধ্যমে তিনি অভিষিক্ত হয়েছিলেন। গত ৯ বছরে ৪০টির বেশী সিনেমাতে অভিনয় করে বাণিজ্যিক ধারায় সিনেমায় আলোচিত হয়েছেন এ নায়ক। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাপ্পীর চৌধুরীর চাহিদা কমেনি, বরং বেড়েছে।

তবে চলচ্চিত্রে ৯ বছর নয়, কোভিডের কারণে দুই বছর বাদ দিতে চান বাপ্পী। চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন, কোভিডের কারণে ২ বছর বাদ দিতে চাই। কারণ, করোনা অনেককিছু থমকে দিয়েছে। বাকি সময়টা স্ট্রাগল করেছি। এটা নিজের সঙ্গে বেশী করেছি। লক্ষ্য যা ছিল তার চেয়ে বেশী পেয়েছি। তবে শিল্পী হিসেবে ভালো কাজের ক্ষুধা দিন দিন বাড়ছে।

Reneta June

নায়ক হওয়ার স্বপ্নে বিভোর হয়ে রুপালী দুনিয়ায় আসেন বাপ্পী। সেই ‘স্বপ্ন পূরণ হয়েছে’ জানিয়ে বাপ্পী বলেন, নায়ক হওয়ার স্বপ্ন আগেই পূরণ হয়েছে। এখন স্বপ্ন দেখি অভিনয় সমৃদ্ধ করার। সেই স্বপ্ন পূরণের লক্ষে ‘প্রিয় কমলা’, ‘ঢাকা ৫৭০’ সিনেমাগুলো করেছি। বর্তমানে ‘জয় বাংলা’র শুটিং করছি। আমার বিশ্বাস এসব সিনেমা দিয়ে ভার্সেটাইল অভিনেতা বাপ্পীকে পাওয়া যাবে।’

বিজ্ঞাপন

গত ৯ বছরে অনেকখানি পরিবর্তন এসেছে বাপ্পী চৌধুরীর। তিনি মনে করেন, সময়ের সঙ্গে মানুষের স্বাভাবিক পরিবর্তন হয়ে থাকে। তারও হয়েছে। ভবিষ্যতেও হবে। তিনি পরিবর্তনে বিশ্বাসী। আর এই পরিবর্তনটিকে বাপ্পী ইতিবাচক হিসেবে দেখেন।

বাপ্পী বলেন, ম্যাচিউরিটি এসেছে, ব্যক্তিজীবন এবং পেশা দুই সবখানে। এক চরিত্র থেকে আরেক চরিত্রে যেতে যে একজন শিল্পীকে স্টাডি করতে হয় সেটা এখন বুঝতে পারি। আগে নায়ক ব্যাপারটা প্রাধান্য দিতাম। কিন্তু এখন অভিনয়কে বেশী প্রাধান্য দেই। প্রতিটি চরিত্রের গুরুত্ব আলাদাভাবে স্ক্রিনে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করছি। এসব ডাইমেনশনাল চরিত্রের সিনেমাগুলো মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। দর্শক যখন সিনেমাগুলো দেখতে পাবেন তখন বুঝতে পারবেন কতখানি চেষ্টা করেছি।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের মতে, বাণিজ্যিক বা মূলধারার সিনেমাতে সুপারস্টার শাকিব খানের পরেই উঠে আসে বাপ্পী চৌধুরীর নাম। বিষয়টি কীভাবে দেখেন জানতে চাইলে বাপ্পী বলেন, এটা নিয়ে মূল্যয়ন করতে পারবো না। সিনেমা সংশ্লিষ্ট গুণীজন ছাড়াও যাদের জন্য সিনেমা করি সেই দর্শক দর্শকদের মূল্যয়নটাই আমার কাছে আসল। তবে শাকিব ভাইয়ের পরে দর্শক আমাকে ভালোবাসে এটা অনেক বড় প্রাপ্তি। যারা আমাকে বাপ্পী চৌধুরী বানিয়েছেন তাদের সবার জন্য হৃদয় থেকে ভালোবাসা।