চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মানুষ ও কবিতা

ফরহাদ হাসান চৌধুরীর ‘আহত মেঘের ধনি’ কবিতাগ্রন্থটি একটি প্রস্তাবনা হিসেবে প্রতিভাত হবে পাঠকের সামনে। তার প্রস্তাবনায় থাকছে মানুষ ও কবিতা। মানুষের অন্দর এবং বাহির।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধেরও প্রায় সত্তর বছর পরের মানুষ। বিশ্বায়ন, প্রযুক্তিকরণ, বাণিজ্যিকীকরণ এর মধ্যে থাকা ব্যক্তি মানুষের প্রস্তাব। সেই মানুষদের মধ্যে কবি নিজে কীভাবে বেঁচে আছেন সে বিষয়ে আঁচ পাওয়া যাবে।

কবিতা কী, কাকে বলে কবিতা, কবিতা যে ভাব অথবা ভঙ্গি আকারে থাকে ব্যক্তির মধ্যে সেই প্রস্তাব আমরা পাব তার বইয়ের দ্বিতীয় কবিতায়। ‘কবিতার ভ্রূণ রাঙিয়ে বসে/আছি, হাজার বছরের পুরনো বিছানায়/বাইরে আমি, ভেতরেও আমি; কী মন্ত্রে/এমন বেঁধেছ সাঁই; কি অদৃষ্ট আঁধারে নিবৃত্ত/গহীনে, দেহের ভেতর আটকে রেখেছ শ্বাস’ (ভাব ধরে আছি)।

কবিতা ব্যক্তি কবির প্রস্তাবনা আকারে হাজির থাকে পাঠকের সামনে। কবিতা নিছক রূপের উপস্থাপনা অথবা নিসর্গের সঙ্গে মিতালি, নিজের একলা ঘরের গহীন কোণে বসে নিজের দুঃখ ও বিষাদের মধ্যে হারিয়ে যাওয়ার কাব্য হয়ে থাকে না শেষ পর্যন্ত। আর কবিতার ‘অর্থ’ তৈরির ক্ষমতা তাকে দুর্বল কবিতা থেকে আলাদা করে। যে প্রস্তাব কবিতায় গুপ্ত থাকে তা তাকে বাঁচিয়ে রাখে- কাউকে বেশি, কাউকে কম।

দেহের মধ্যে শ্বাস আকারে কবিতা থাকার যে দর্শন দেখিয়েছেন ফরহাদ হাসান তা আমাদের বাংলা অঞ্চলের দেহতাত্ত্বিক ধারণার সঙ্গে মিলে যায়। দেহের ভেতর এক ‘অচিন পাখি’ হিসেবে কবিতার এই এক আসা-যাওয়া। কিন্তু এই আসা ও যাওয়ার কালে এক নিরন্তর আমির উপস্থিতি। ভেতরে ও বাইরে কেবল আমি। আমির মধ্যে আমার এই কুরে কুরে মরার সংকট কবিতা আকারে প্রকাশ পায়। তবে এই আমি হাজার বছরের পুরনো বিছানায় বসে থাকে। পরম্পরার সঙ্গে কবিতার সংযুক্তি আছে। অর্থাৎ সে বায়বীয় নয়, উম্মুল নয়। বিচ্ছিন্ন কিছু নয়।

বই: আহত মেঘের ধ্বনি
লেখক: ফরহাদ হাসান চৌধুরী
প্রকাশক: চৈতন্য প্রকাশনী
প্রচ্ছদ: রাজিব দত্ত
বই মেলা স্টল নং: ৬০৪-৬০৫
রকমারি ডটকম লিংক
কবিতার সংখ্যা: ৩৬
মূল্য : ১৪০ টাকা