চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভ্যাকসিন ৯৮ শতাংশ কার্যকরের সম্ভাবনা ‘বড় বিষয়’ নয়

কোভিড ভ্যাকসিন ৯৮ শতাংশ কার্যকর হওয়ার সম্ভাবনা কোনো ‘বড় বিষয়’ নয় বলে সতর্ক করছেন বিশেষজ্ঞরা।

শুক্রবার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি এবং ইনফেকশাস ডিজিজের পরিচালক ডা. অ্যান্থনি ফাউসি বলেন, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রায় ১০০ ভাগ কার্যকর হওয়ার সম্ভাবনা ‘বড় বিষয়’ নয়। অনুমোদিত করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনটি মাত্র ৫০ শতাংশও কার্যকর হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

ব্রাউন ইউনিভার্সিটির ওয়েব সেমিনারে যুক্তরাষ্ট্রের এই শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ বলেন, টিকার কার্যকারিতা কী হতে পারে তা আমরা এখনও জানি না। এটি ৫০ শতাংশ বা ৬০ শতাংশ হবে কিনা তাও জানি না। ৭৫ ভাগ বা তার বেশি হোক সেটাই আমরা চাই।

ডা. ফাউসি সতর্ক করে বলেন, জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়গুলো কখনোই পরিত্যাগ করা যাবে না। কারণ ৯৮ শতাংশ কার্যকর উচ্চতর একটি ভ্যাকসিন তৈরি করা অসম্ভব বলে প্রমাণিত হতে পারে।

এর অর্থ আমেরিকানদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং ভাইরাসের বিস্তার বন্ধ করতে বদ্ধ জায়গায় বা বিশাল জনসমাগমে মাস্ক পরতে হবে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার মার্কিন ওষুধ নিয়ন্ত্রক জানিয়েছে যে কোনও ভ্যাকসিন অনুমোদনের আগে স্বতন্ত্র বিশেষজ্ঞদের দ্বারা তা পর্যালোচনা করা হবে।

খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) জানিয়েছে, তারা সবুজ সংকেত দেওয়ার আগে একটি বাহ্যিক উপদেষ্টা কমিটি গঠন করবে। যাতে মানুষকে আশ্বস্ত করা যায় যে রোগ প্রতিরোধের দৌড়ে এগিয়ে থাকতে গিয়ে কোনও কোণই তারা কাটছাট করেনি।

ডা. ফাউসি করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার ১ থেকে ২ শতাংশ বাড়লেই যত দ্রুত সম্ভব প্রতিক্রিয়া জানাতে রাজ্যগুলিকে আহ্বান জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে এখন আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৫০ লাখ। আর প্রাণ হারিয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার মানুষ। বিশ্বের ভাইরাসজনিত মৃত্যুর এক চতুর্থাংশই ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। সবচেয়ে বেশি প্রাণহানীর তালিকায় তারপরের অবস্থানে আছে ব্রাজিল, মেক্সিকো ও যুক্তরাজ্য।

এরই মধ্যে রাজ্যগুলি আগামী সপ্তাহে আবার স্কুল চালু করা উচিত কিনা সে বিষয়ে ভাবছে। আক্রান্তের হার বেড়ে যাওয়ায় ক্যালিফোর্নিয়া, টেক্সাস এবং ফ্লোরিডাসহ বেশ কয়েকটি জায়গায় আবার লকডাউন দেওয়া হয়েছে।