চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘বিশ্বকাপের জন্য ঈদে নাটকের দর্শক কমবে না’

ছোট পর্দার ঈদ:

নির্মাতা হিসেবে ছোটপর্দায় জনপ্রিয়তা পেয়েছেন বহু আগেই। পাশাপাশি বড়পর্দায়ও ‘প্রজাপতি’, ‘তারকাটা’, সর্বশেষ শাকিব খানকে নিয়ে ‘সম্রাট’ নির্মাণ করে মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন। তিনি মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ। নির্মাণাধীন তার নতুন ছবি ‘যদি একদিন’। তবে তার ফাঁকেই রাজের নির্দেশনায় এই ঈদে ৬ টি নাটক প্রচার হবে কয়েকটি শীর্ষস্থানীয় চ্যানেলে।

কেমন হবে তার পরিচালনায় ঈদের ছয় নাটক? বৃহস্পতিবার দুপুরে চ্যানেল আই অনলাইনকে ছোট পর্দার ঈদ অনুষ্ঠান নিয়ে জানিয়েছেন নির্মাতা।

আসন্ন ঈদুল ফিতরে আমার পরিচালিত ছয়টি নাটক প্রচারিত হবে। নাটকগুলো হচ্ছে ‘কি জানি কি হয়’, ‘অনুভবে’, ‘কবিতার মতো গল্প’, ‘হ্যালো ৯১১’, ‘লাভ এমারর্জেন্সি’, ‘বিবাহ কলহ’, ‘ছবির মানুষ’। এই ছয়টি নাটক চারটি চ্যানেলে প্রচারিত হবে। গল্পের কথা যদি বলি, একটার সঙ্গে অন্যটার কোনোভাবেই মিল নেই। কোনটা থ্রিলার, কোনটা রোমান্টিক, আবার কোনোটা কমেডি, কোনটা হয়েছে ইমোশনাল, এছাড়া রেডিও স্টেশন নিয়ে একটা ভিন্ন গল্পের নাটক আছে।

Advertisement

চ্যানেল আইয়ের জন্য নির্মিত ‘কি জানি কি হয়’ নাটকের জন্য এবার প্রথম নাটকের শুটিং-এ ‘রেড ক্যামেরা’ ব্যবহার করলাম। দেখলেই মনে হয়ে সিনেমা! নাটকের ক্ষেত্রে ‘রেড ক্যামেরা’ ব্যবহার করা হয় না। নাটকের গল্পটার কারণে এ ক্যামেরা নিতে হয়েছে। পুরোটাই থ্রিলে ভরা। প্রথমে দেখলে শেষ পর্যন্ত দেখতে মন চাইবে। দর্শক মনোযোগ অন্যদিকে দিতে পারবে না। আবার পুরোটা না দেখলে কিছু বোঝা যাবেনা। এই নাটকে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো, মোনালিসা, সাজু খাদেম প্রমুখ।

এবার কাজগুলো করতে গিয়ে আমার নতুন কিছু অভিজ্ঞতা হয়েছে। আজ উত্তরায় এখনও শুটিং করছি। সন্ধ্যার মধ্যে শেষ করবো। অথচ দুইদিন পরেই ঈদ। আরেকটা অভিজ্ঞতা হয়েছে যে, আমার একটি নাটকের ফুটেজ ডিলিট হয়ে গিয়েছিল। পুরোটাই আবার রি-শুট করতে হয়েছে। এটা একটা এক্সিডেন্ট আর কি! এছাড়া অনেকগুলো শিল্পীর সঙ্গে কাজ করেছি। যেমন, মিম মানতাসা প্রথম কাজ করলো আমার সাথে, মোনালিসা অনেক বছর পর আমার নির্দেশনায় কাজ করেছে।

আজ থেকে বিশ্বকাপ শুরু হচ্ছে। ঈদ উৎসবে ছোটপর্দায় বিশ্বকাপ ফুটবল খুব বেশি বাগড়া দেবে আমি মনে করি না। তবে কিছু দিতে পারে। কারণ আমাদের দেশে ফুটবল বিশ্বকাপের মেক্সিমাম দর্শকই আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, ফ্রান্স ও জার্মানির সাপোর্ট করেন। এই খেলাগুলোর দিন ছাড়া অন্য সময় সমস্যা হবে বলে আমি মনে করিনা। তাছাড়া এখন হিউজ দর্শক নাটক ইউটিউব থেকে দেখেন। টেলিভিশনে নাটক অনএয়ার মিস করলে সেটা চট করে সময় বুঝে ইউটিউব থেকে দেখে নেয় দর্শক। আমি মনে করি, ঈদে বা অন্যসময় নাটক দেখার জন্য দর্শক কমবে না। একজন নির্মাতা হিসেবে আমার কথা হচ্ছে, নাটক নির্মাণ করছি দর্শকদের দেখার জন্য। সেটা টেলিভিশন হোক, ইউটিউব কিংবা অন্যকোনো ডিজিটাল মাধ্যম থেকে দর্শক দেখলেই হলো।