চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিপিএলের অভিজ্ঞতাতেই বাংলাদেশকে হারাবে জিম্বাবুয়ে

আগেভাগে এসে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা থাকলেও জিম্বাবুয়ে ঢাকায় পা রেখেছে নির্ধারিত সময়ের একদিন পর। তাতে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচের সময়সূচীও গেছে ভেস্তে। দলটির অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমারের কথা শুনলে অবশ্য মনে হবে ‘সে আর এমন কি’! তার ভাষ্যমতে বিপিএল আর ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে খেলে জিম্বাবুইয়ানরা এখানকার মাঠকে এতটাই ভাল চিনে ফেলেছেন যে, বাড়তি প্রস্তুতি ম্যাচের প্রয়োজনই নেই! সেই অভিজ্ঞতা দিয়েই ত্রিদেশীয় সিরিজে বাজিমাতের পরিকল্পনা ক্রেমারের দলের।

‘প্রস্তুতি ম্যাচ না খেলতে পারাটা হয়ত খুব ভাল কিছু নয়। কিন্তু আমরা ঢাকায় অনেকবার খেলে গেছি। আর কন্ডিশন আগের চেয়ে খুব একটা পরিবর্তন হয়েছে বলেও মনে হয় না। আজ ও কাল কয়েকটা অনুশীলন সেশন আছে। আমরা কৃত্রিম আলোয় একটা সেশন রেখেছি। দলের নতুনদের জন্য হয়ত একটু কঠিন হবে। কিন্তু পুরনো যারা আছে, তাদের অভিজ্ঞতাই ম্যাচ জেতানোর জন্য যথেষ্ট।’

বিপিএলের প্রায় প্রতি আসরেই কম-বেশি আনাগোনা ছিল জিম্বাবুইয়ান ক্রিকেটারদের। পঞ্চম বিপিএলে খেলে গেছেন সিকান্দার রাজা, ম্যালকম ওয়ালার এবং ক্রেমার নিজেও। শনিবার সেই অভিজ্ঞতা টেনেই সংবাদ মাধ্যমকে ক্রেমার জানালেন, প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে কোন আফসোস নেই। নিজ দেশের বাইরে বাংলাদেশকেই তারা সবচেয়ে ভাল জানেন।

‘আমার কথাই বলি; বিপিএল খেলার সময় আমি বাংলাদেশের ক্রিকেটার এবং কয়েকজন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারকে খুব কাছ থেকে দেখেছি, শিখেছি। আমাদের জন্য এটা দারুণ কাজে লাগবে। আর রাজা এবং ওয়ালারের অভিজ্ঞতাও আমরা কাজে লাগাতে চাই।’

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের ক্রিকেটের শুরুর দিনগুলোতে রীতিমত আতঙ্কই ছিল জিম্বাবুয়ে! কিন্তু দিনকে দিন টাইগার ক্রিকেট যতটা তরতর করে এগিয়েছে, সেখানে পতনের দিকে গেছে আফ্রিকান দেশটির পারফরম্যান্স। বাংলাদেশে খেলে যাওয়া সবশেষ দুই ওয়ানডে সিরিজেই ধবলধোলাই হয়েছে জিম্বাবুয়ে। তাদের অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের অনেকে দেশ ছেড়ে যাওয়াতে তৈরি হয়েছে শূন্যতা।

সোনালী সময় ফিরিয়ে আনতে মরিয়া জিম্বাবুয়ের সবশেষ মনে রাখার মত প্রদর্শনী ছিল গত বছর শ্রীলঙ্কার মাটিতে, সেখানে ওয়ানডে সিরিজ জেতে দলটি। টেস্টেও জয় পেতে পেতে হাতছাড়া করেছে। দলের শক্তি বাড়াতে ইংল্যান্ড থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেলর ও কাইল জার্ভিসকে। লঙ্কানদের বিপক্ষে সিরিজ জয় ও টেলর-জার্ভিসের প্রত্যাবর্তন ১৫ জানুয়ারি শুরু হতে যাওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ে সহায়ক হবে বলেই মত ক্রেমারের।

‘ঢাকায় খেলাটা খুব কঠিন হবে। বিশেষত বাংলাদেশ তাদের মাটিতে খুবই ভাল খেলে। কিন্তু আমরা দলটির খেলোয়াড়দের খুব ভাল করেই জানি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ জয়টা আমাদের বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগাবে। দারুণ একটা ত্রিদেশীয় সিরিজ হবে বলেই আশা করি।’

‘টেলর চলে গিয়ে আমাদের মিডলঅর্ডারে দারুণ এক শূন্যতা রেখে গিয়েছিল। ওকে ফিরে পাওয়াটা বিশেষ কিছু। সঙ্গে জার্ভিসের বোলিং অভিজ্ঞতাও আমাদের জন্য কাজে লাগবে। আপনাদের শুধু বলতে পারি, আমরা এমন এক দলকে নিয়ে এসেছি যেরকম দল আমাদের কখনোই ছিল না।’ যোগ করেন ক্রেমার।

বিজ্ঞাপন