চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফুলেল শ্রদ্ধায় সিক্ত ফকির আলমগীর

খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে দাফন

শেষযাত্রায় সর্বস্তরের মানুষের ফুলেল শ্রদ্ধায় সিক্ত হলেন কিংবদন্তী গণসংগীতশিল্পী, একুশে পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমগীর। প্রথমে শনিবার সকালে কিংবদন্তি এই শিল্পীকে খিলগাঁও সংসদের বিভিন্ন সংগঠন শ্রদ্ধা জানায়। আজীবন সদস্য থাকায় খিলগাঁও পল্লীমায় বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমীরকে দেয়া হয় গার্ড অব অনার দেয়া হয়। সেখানেই তার প্রথম নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়।

এরপর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষ স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠযোদ্ধার প্রতি শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানান। শ্রদ্ধা জানানো শেষে বাদ জোহর খিলগাঁও মাটির মসজিদে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে প্রখ্যাত গণসঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীরকে দাফন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এর আগে করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে মারা যান তিনি। ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শোক জানিয়েছেন মন্ত্রী, এমপি, শিল্পী সাহিত্যিকসহ বিশিষ্টজনেরা।

করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে নানা জটিলতা দেখা দেয় কিংবদন্তি শিল্পী ফকির আলমগীরের। ১৫ তারিখ রাতে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হলে শুক্রবার রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে কোভিড ইউনিটে ভেন্টিলেশনে থাকা অবস্থায় হার্ট অ্যাটাকে ফকির আলমগীর শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

বিজ্ঞাপন

ষাটের দশক থেকে গণসংগীত ও বাংলা পপ গানের বিকাশে অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব ছিলেন ফকির আলমগীর। স্বাধীনতার পর পাশ্চাত্য সঙ্গীতের সঙ্গে দেশীয় সুরের মেলবন্ধনে তিনি গেয়েছেন জনপ্রিয় অনেক গান। ক্রান্তি শিল্পী গোষ্ঠী ও গণশিল্পী গোষ্ঠীর সদস্য হিসেব ১৯৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানে শামিল হন তিনি। ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের একজন কণ্ঠযোদ্ধা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন ফকির আলমগীর। প্রকাশ করেন মুক্তিযুদ্ধ ও গণসঙ্গীত বিষয়ক বেশ কয়েকটি বই। দেশের সকল গণতান্ত্রিক-সাংস্কৃতিক-সামাজিক আন্দোলনের সামনের সারিতে ছিলেন তিনি।

সঙ্গীতে অবদানের জন্য একুশে পদকে ভূষিত হন ফকির আলমগীর। চ্যানেল আইয়ের সাথে ফকির আলমগীরের ছিলো নিবিড় সম্পর্ক। নানা আয়োজনে সব সময় অংশ নিয়েছেন তিনি।

দেশপ্রেম ও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে নিজের শিল্পী জীবনকে নিবেদন করে যাওয়ার জন্য মানুষের মনে আজীবন বেঁচে থাকবেন ফকির আলমগীর।