চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফাঁকা এফডিসি, চলতি মাসে হয়নি কোনো সিনেমার শুটিং

চলতি মাসে এফডিসিতে হয়নি সিনেমার শুটিং:

সিনেমা তৈরির কারখানা বলা হয় চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (এফডিসি)-কে। অথচ চলতি মাসের প্রায় ২০ দিন হতে চললেও এফডিসির কোথাও হয়নি কোনো সিনেমার শুটিং! আশ্চর্য শোনালেও এটাই সত্যি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, পুরো এফডিসি জুড়ে কোথাও নেই কোনো ব্যস্ততা, কারো মধ্যে নেই কর্মচাঞ্চল্য, কোনো স্পটেই লাইট-ক্যামেরার বালাই নেই, লোকের গুঞ্জন নেই, এফডিসিতে প্রবেশ করতে মূল ফটকে সাধারণ মানুষের হুড়োহুড়ি নেই। একসময়ে সবার পদচারণায় মুখরিত থাকা এফডিসি নভেম্বরের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত একেবারে ফাঁকা!

বিজ্ঞাপন

এফডিসির প্রধান ফটক দিয়ে ঢুকতেই নিরাপত্তাপ্রহরীদের একজন বললেন, সিনেমার কোনো শুটিং হচ্ছে না। ভেতরে ঢোকার পর নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তিদের অন্য একজন বললেন, সিনেমার যা অবস্থা শুটিং হবে কীভাবে! আগে এফডিসিতে বাইরের মানুষ ঠেকাতে হিমশিম খেতে হতো। কিন্তু এখন অলস বসেই সময় কাটছে।

সোমবার পুরো এফডিসি ঘুরে দেখা যায়, কোনো ফ্লোরে সিনেমার শুটিং হচ্ছে না। বেশিরভাগ শুটিং ফ্লোরে তালা ঝুলছে।

তবে চার নাম্বার ফ্লোরে উঁকি দিয়ে দেখা গেল, একটি বিজ্ঞাপনের শুটিং হচ্ছে। তাও একদিনের জন্য। পাশেই তিন নাম্বার ফ্লোর। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সেখানে সৈকত নাসির পরিচালিত নিরব-বুবলী’র ‘ক্যাসিনো’ সিনেমার শুটিংয়ের সেট নির্মাণ হচ্ছে। নির্মাতার সঙ্গে মুঠোফোনে আলাপ করলে তিনি বলেন, ২৪ তারিখ থেকে এই ফ্লোরে ক্যাসিনো’র শুটিং শুরু করার কথা।

একটি বেসরকারি টেলিভিশনের নিয়ন্ত্রণে থাকা আট নম্বর ফ্লোর মাড়িয়ে ক্যান্টিনে ঢুকতেই দেখা গেল জনশুন্য এফডিসি ক্যান্টিন। দুপুর গড়ালেও একেবারেই ফাঁকা! সেখানে বসে ছিলেন ছোটপর্দার নির্মাতা দিপু হাজরা। তিনি বললেন, বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে চ্যানেল আইয়ের একটি নাটক বানাবো। সেজন্য কস্টিউমের ব্যাপারে এক প্রোডাকশন ম্যানেজারের সঙ্গে আলাপ করতে এসেছি এফডিসিতে।

এদিকে, ক্যান্টিনের ব্যবস্থাপক জানান, নভেম্বর মাসে সিনেমার কোনো শুটিং হয়নি এফডিসিতে। তাই ক্যান্টিনে মানুষজনের আনাগোনা কম। তার ভাষ্য: গতমাসে শিল্পী সমিতির নির্বাচন ঘিরে জমজমাট ছিল এফডিসি। তখন কিছু বাড়তি ব্যবসা হয়েছে। সেটা দিয়ে এ মাস পুষিয়ে নিচ্ছেন।

ক্যান্টিন থেকে বেরিয়ে দেখা হয় পরিচালক সমিতি, শিল্পী সমিতি, মান্না ডিজিটাল কমপ্লেক্স, এফডিসির প্রশাসনিক ভবন হয়ে কড়ই তলা ঘুরলেও চোখে পড়েনি কোনো শুটিং! সবখানেই জনমানব শুন্য! তবে শিল্পী সমিতির বাইরে কয়েকজন কর্মচারী বসে ছিলেন। তাদের একজন জানালেন, শুটিং নেই বলে এফডিসি ফাঁকা! নির্বাচন শেষ সেজন্য সমিতিতে অফিসিয়াল কাজের চাপ কম।

এফডিসির অন্যতম ব্যস্ত জায়গা কড়ই তলাতেও নেই চিরচেনা ভিড়। সেখানে ছিলেন কয়েক শতাধিক সিনেমার প্রোডাকশন ম্যানেজার মিজান। তার সঙ্গে আলাপে জানা যায়, আগের মতো সিনেমার ব্যস্ততা নেই। অপূর্ব রানার ‘উন্মাদ’ ছবির পরে আর কোনো শুটিং হয়নি এফডিসিতে। নভেম্বর মাসের ১৯ দিন পার হলেও একেবার সিনেমার শুটিং শুন্য এফডিসি।

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সাংগঠনিক সচিব কবিরুল ইসলাম রানা ‘উন্মাদ’ ছবির পরিচালক। তিনি চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ২৮ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত এফডিসির এক নম্বর ফ্লোরে ‘উন্মাদ’ ছবির শুটিং করি। এরপর থেকে চলতি মাসে এফডিসিতে কোনো শুটিং হয়নি।

এফডিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা হিমাদ্রি বড়ুয়া বলেন, মিউজিক ভিডিও, নাটক-বিজ্ঞাপনের দু-একদিন শুটিং হলেও নভেম্বরে সেভাবে সিনেমার শুটিং হয়নি এফডিসিতে। এখানে সবধরনের সুযোগ সুবিধা থাকার পরেও কেন শুটিং হচ্ছে না তা জানা নেই।

যদিও প্রযোজক সমিতি ও শিল্পী সমিতির নির্বাচনের পর নেতারা বলছেন, ‘দুর্দিন অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াবে ইন্ডাস্ট্রি। আগের মতো আবারও সরব হবে এফডিসি। নিয়মিত নির্মাণ হবে সিনেমা।’ নেতাদের এমন কথার বাস্তবায়ন হবে, সেদিকেই তাকিয়ে আছেন সিনেমা সংশ্লিষ্ট মানুষেরা।

Bellow Post-Green View