চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পিলখানা হত্যাকাণ্ড ঘাটলে বিএনপির সংশ্লিষ্টতা প্রমাণ হবে: কাদের

‘পাপিয়া’ কোনো মুখরোচক খবর নয়, পাপের বিচার হবে: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন: বিএনপি পিলখানা হত্যাকাণ্ড নিয়ে যতই ঘাটবে ততই নিজেদের জালে নিজেরা প্যাঁচাবে, ধরা পড়বে এবং জাতির সামনে এই হত্যাকাণ্ডে তাদের সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত হবে।

বুধবার রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘর শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে শিশু-কিশোরদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ, ল্যাপটপ বিতরণ ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদের।

এসময় ‘বিএনপি ক্ষমতায় গেলে পিলখানা হত্যাকাণ্ডের নতুন করে বিচার করা হবে’ মির্জা ফখরুলের এমন মন্তব্যের বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়। সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন: পিলখানা হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিএনপি এখনো মিথ্যাচার করছে। আমি বলতে চাই একসাথে এত লোকের বিচার, এত দ্রুত সময়ের বিচার পৃথিবীর ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা। পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিচার সারা পৃথিবীর জন্য একটা উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। এত লোকের বিচার, এত দ্রুত সময়ে বিচার পৃথিবীর কোথাও হয়নি, যেটা শেখ হাসিনা করতে পেরেছেন।

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন: বিএনপি বলছে তারা ক্ষমতায় আসলে পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিচার নতুন করে শুরু করবে। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কেঁচো খুঁড়তে গেলে বিষধর সাপ বেরিয়ে আসবে। ২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ৭টায় বেগম জিয়া কোথায় গিয়েছিলেন? যিনি দুপুর ১২টার আগে ঘুম থেকে ওঠেন না, সকাল ৭টায় ঘুম থেকে উঠে তিনি কোথায় পলায়ন করেছিলেন, দুই দিন ধরে তার কোন খোঁজ খবর ছিল না। সেই রহস্য নতুন বিচার করতে গেলে বেরিয়ে আসবে।

বিজ্ঞাপন

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন: বেরিয়ে আসবে ভোর পাঁচটা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত ২ ঘণ্টাব্যাপি ১১ বার তারেক রহমানের সঙ্গে কী কথা বলেছে। সেই রহস্য উদঘাটন করা হবে। কী কথা হয়েছিল মা-ছেলের মধ্যে, সেটা জাতি জানতে পারবে। কেঁচো খুঁড়তে গিয়ে বিষধর সাপ বের করবেন না। এটা নিয়ে যতই ঘাটবেন ততই নিজেরা, নিজেদের জালে প্যাঁচাবেন, ধরা পড়বেন। এই হত্যাকাণ্ডে আপনাদের (বিএনপির) যে সংশ্লিষ্টতা তা জাতির সামনে ভালোভাবে প্রমাণিত।

বাংলাদেশে শেখ হাসিনা ছাড়া বিচার করার মতো আর কারো সৎ সাহস নেই জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন: এই দেশে অনেক সরকার ক্ষমতায় এসেছে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ ২১ বছর ক্ষমতায় ছিল না। এদেশে কোনো দল তাদের নেতাকর্মীদের বিচার করেনি, একমাত্র আওয়ামী লীগ ছাড়া। অনেক দুর্নীতি, অনেক চাঁদাবাজি, অনেক সন্ত্রাস জন্ম দিয়ে, অনেক খুন করেছে; কোনো অপকর্মের বিচার করেনি। শেখ হাসিনা ছাড়া এদেশের কোনো প্রসিডেন্ট, কোনো প্রধানমন্ত্রী নিজের দলের অপকর্মের বিচার করেনি। একটা উদাহরণ ও দেখাতে পারবেন না। আওয়ামী লীগ ছাড়া, শেখ হাসিনা ছাড়া এ দেশের অন্য কোনো দল নিজের নেতাকর্মীদের বিচার করেনি। নিজেদের সন্ত্রাসী, নিজেদের খুনের, নিজেদের চাঁদাবাজ, এসব অপকর্মের জন্য কারও বিচার হয়নি।

তিনি আরও বলেন: এমনকি পাপিয়ার মতো অপরাধীদেরও কোনো বিচার হয়নি। এসব অপরাধী তাদের (বিএনপির) মধ্যে ছিল, হাজার হাজার পাপিয়া ছিল কিন্তু কারও বিচার হয়নি। শেখ হাসিনাই এদেশে প্রথম সৎ সাহস দেখিয়েছেন অন্যায়ের, অপকর্মের বিচার করার। এজন্য নিজের ঘর থেকে শুরু করেছেন। সেই ধারায়ই পাপিয়া গ্রেপ্তার হয়েছে। এটা কোন মুখরোচক খবর নয়, পাপের বিচার হবেই। শেখ হাসিনা এদেশে কোন অপরাধী, সন্ত্রাসী, অপকর্মকারীদের প্রশ্রয় দেবেন না। এ ঘটনা তারই প্রমাণ। শেখ হাসিনার নির্দেশেই পাপিয়া গ্রেপ্তার হয়েছে। আমাদের এখানে কেউ অপরাধ করে পার পাবে না। ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব আপনাদের দলে হাজার হাজার নেতাকর্মী ছিল এবং আছে, কারও বিচার করেননি। আপনাদের সময় অনেক পাপিয়া ছিল। কিন্তু এমনভাব ছিল যে আপনাদের কারো গায়ে আঁচড় লাগাতে পারবেন না। নিজের ঘরে থেকে অপরাধের বিচার শুরু করেছি, আমাদের কাছে কোনো অপরাধীই অপরাধ করে পার পাবে না।

শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের চেয়ারম্যান রকিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের মহাসচিব মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীসহ অনেকে।

বিজ্ঞাপন