চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পানিতে ডুবে বিশ্বে প্রতি ৮০ সেকেন্ডে এক শিশুর মৃত্যু: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

পানিতে ডুবে বিশ্বে প্রতি ৮০ সেকেন্ডে একজন শিশুর মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

সংস্থাটি বলছে, প্রতিবছর বিশ্বজুড়ে পানিতে ডুবে ৩ লাখ ৭২ হাজার মানুষ মারা যায়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, পানিতে ডুবে বেশি শিশুর মৃত্যু ঘটে এশিয়াতেই, বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়ার নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশে ৯১ শতাংশ শিশু মারা যায়। এসব দেশের মানুষ তাদের দৈনন্দিন কাজে, যেমন-পানি সংগ্রহ, গোসল করা, মাছ ধরা বা খেলা করা ইত্যাদিতে উন্মুক্ত জলাশয়ের পানি ব্যবহার করে যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

এছাড়াও ৪০ শতাংশ শিশু মারা যায় ১৪ বয়সের নীচে। বিশ্বে বয়স্কদের চাইতে ১৮ বয়সের নীচে শিশুরা তিন গুণ বেশি পানিতে ডুবে মারা যায়।

বিজ্ঞাপন

ব্লুমবার্গ ফিলানথ্রপিস, জন হপকিন্স ইন্টারন্যাশনাল ইনজুরি রিসার্চ ইউনিট জানায়, বিশ্বের সব দেশের শিশু মৃত্যুর মধ্যে পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যু একটি অন্যতম বড় কারণ। সারা বিশ্বেই এক বছর থেকে চার বছরের শিশুরা বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে, তারপর পাঁচ থেকে নয় বছরের শিশুরা। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অথচ অবহেলিত জনস্বাস্থ্য সমস্যা।

প্রতিকার হিসেবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, বিশ্বে যদি জলাশয় উন্মুক্ত না রেখে তা সুরক্ষিত রাখা যায় তাহলে ৭৫ শতাংশ শিশুর জীবন বাঁচানো সম্ভব।এছাড়াও শিশুকে সার্বক্ষণিক নজরদারির মধ্যে রাখলে এ দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব।

এছাড়াও অভিভাবকদের সচেতনা বৃদ্ধি, সামাজিক সচেতনা বৃদ্ধি, শিশুদের সুরক্ষায় ডে কেয়ার স্থাপন, সাঁতার শিখানো, বাড়িতে শিশু বেষ্টনী তৈরির মাধ্যমে পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর ঘটনা অনেকটাই কমিয়ে আনা সম্ভব।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাবেক মহাপরিচালক ড. মার্গারেট চ্যান বলেন, পানিতে ডুবার তথ্য এবং ডুবে যাওয়া প্রতিরোধ ব্যবস্থাগুলো এখনও অনেকটাই অজানা। এ বিষয়ে গবেষণা চলছে। তবে কালক্ষেপণ না করে এ যাবৎকালে যে সমস্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থা গবেষণা দ্বারা প্রমাণিত হয়েছে তা জরুরী ভিত্তিতে কাজে লাগিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর পানিতে ডুবা প্রতিরোধের কর্মকৌশল তৈরি করতে হবে।

বেশিরভাগ পানিতে ডুবে মৃত্যু ঘটে গ্রামাঞ্চলে, হাসপাতাল থেকে দূরে এবং নীতি নির্ধারকদের অলক্ষ্যে। এই নীরব ঘাতক বা মহামারী নির্মূলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পৃথিবীর সকল দেশে এ বিষয়ে জাতীয় পরিকল্পনা প্রণয়ন করার পরামর্শ দিয়েছে।