চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পদ্মা পাড়ের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বেড়েছে জমির দাম

শুধু শিল্পকারখানাই নয়, পদ্মা সেতুর কল্যাণে দক্ষিণাঞ্চলে গড়ে উঠছে আধুনিক মডেল টাউন। নামীদামী তো আছেই, অখ্যাত আবাসন কোম্পানীও জমি কিনছে পদ্মাপাড়ের জেলাগুলোতে। এই সুযোগে জমির দামও বেড়েছে কয়েকগুণ।

শিল্পকারখানা গড়ে ওঠার পাশাপাশি পদ্মাপাড়ের জেলাগুলোতে ভিড় করতে শুরু করেছে বিভিন্ন আবাসন কোম্পানী। আবাসন ব্যবসার সম্ভাবনাকে সামনে রেখে আধুনিক মডেল শহর হিসেবে গড়ে তুলতে, রাস্তার দুপাশের শত শত একর জমি কিনে সাইনবোর্ড টানিয়ে দিয়েছেন বিভিন্ন আবাসন মালিকরা। নিচু জমিতে বালু দিয়ে ভরাট করে অনেক আবাসন মালিকরা এরই মধ্যে প্লট বিক্রি শুরু করছেন।

আবাসন মালিকরা বলছেন, পদ্মাসেতুকে ঘিরে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছেন তারা।

স্বপ্নধারা গ্রুপের মালিক মহিদুর রহমান বলেন, এ এলাকাটার পুরোটাই আমাদের কেনার আগ্রহ আছে। সেই সাথে আমরা যে প্লটগুলো কিনেছি সেগুলোতে কাজ করবো। পরিকল্পনা আছে এখানে আমরা নিজস্ব হাসপাতাল, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ইত্যাদি করবো।

আবাসন মালিকদের জমি কেনার এ তোড়ঝোড়ে জমির দাম বেড়েছে কয়েকগুণ। গত ৩ বছরে শরিয়তপুর, মাদারীপুর, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জে প্রধান সড়কের পাশের জমির দাম বেড়েছে ৫ থেকে ১০ গুন। প্রধান সড়কের পাশে জমি এখন দুষ্প্রাপ্য। এলাকাবাসী বলেন, এক শতক জমি ৩০ হাজার টাকায় কিনলেও বিক্রি করছে এক লাখের উপর।

শুধু শিল্প বা আবাসন খাতই নয়, পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হলে গতি পাবে দক্ষিণাঞ্চলের সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড।