চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘নিত্যপণ্যের মজুদ পর্যাপ্ত, কৃত্রিমভাবে সংকট সৃষ্টি করা যাবে না’

দেশে বর্তমানে চাল, ভোজ্য তেল, চিনি, পেঁয়াজ, আদা ও রসুনসহ সব ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পর্যাপ্ত মজুদ এবং সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ। অতএব কৃত্রিম উপায়ে এসব পণ্যের সংকট দেখি দাম বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই বলে জানান তিনি।

বুধবার সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মজুদ, সরবরাহ, আমদানি, মূল্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক এবং স্থিতিশীল রাখার লক্ষে আয়োজিত সভায় এসব তথ্য জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বাণিজ্য সচিব বলেন, আন্তর্জাতিক বাজার দরের সাথে সামঞ্জস্য রেখে দেশে মূল্য নিশ্চিত করতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কাজ করছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর দেশব্যাপী বাজার মনিটরিং এবং অভিযান জোরদার করেছে। আমদানি নির্ভর পণ্যের মূল্য যৌক্তিক পর্যায়ে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

প্রয়োজনের তুলনায় দেশে পর্যাপ্ত পণ্য মজুদ রয়েছে উল্লেখ করে তপন কান্তি ঘোষ বলেন, বাজারে যাতে পণ্য সরবরাহে কোন ধরনের ঘাটতি বা ব্যাঘাত সৃষ্টি না হয় অথবা কৃত্তিম উপায়ে পণ্যের সংকট সৃষ্টি করা না হয়, সে বিষয়ে সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে। টিসিবির মাধ্যমে ভর্তুকি মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য খোলা বাজারে বিক্রয় অব্যাহত রাখা হয়েছে। গত বছরের চেয়ে এবার প্রায় আড়াইগুণ বেশি পণ্য বিক্রয় করা হচ্ছে। অন্যায়ভাবে পণ্যের মজুদ করলে বা কৃত্রিম উপায়ে মূল্য বাড়ানোর চেষ্টা করা হলে সরকার আইন মোতাবেক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

বাণিজ্য সচিব বলেন, বাজারে চালের সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক রাখতে সরকার চাল আমদানি শুরু করেছে। এ জন্য আমদানি শুল্ক কমানো হয়েছে। পণ্যের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

এছাড়া আমদানিকৃত ভোজ্য তেল এবং চিনির যৌক্তিক মূল্য নিশ্চিত করতে মনিটরিং জোরদার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সভায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারপার্সন মফিজুল ইসলাম, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মো. হাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব (আইআইটি) এ এইচ এম সফিকুজ্জামান, এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী, বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের সদস্য আবু রায়হান আল-বেরুনী, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন ও পণ্য আমদানিকারক গ্রুপগুলোর প্রতিনিধিরা।