চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিজের আচরণের জন্য ক্ষমা চাইলেন সাকিব

নিজের আচরণের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন সাকিব আল হাসান। শুক্রবার মিরপুরে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টুয়েন্টিতে মোহামেডান-আবাহনী ম্যাচে মেজাজ হারিয়ে লাথি মেরে স্টাম্প ভাঙেন এ অলরাউন্ডার। ম্যাচের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি পোস্ট দিয়ে দুঃপ্রকাশ করে ক্ষমা চান মোহামেডান অধিনায়ক।

তিনি লেখেন, ‘প্রিয় ভক্ত ও অনুসারীরা, মেজাজ হারিয়ে ম্যাচের ভাবমূর্তি নষ্ট করায় আমি খুবই দুঃখিত। বিশেষ করে যারা বাসা থেকে খেলা দেখছেন। আমার মতো অভিজ্ঞ এক ক্রিকেটারের এভাবে প্রতিক্রিয়া দেখানো ঠিক নয়, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে মাঝে মাঝে অবিশ্বাস্য কিছু ঘটে যায়। আমি আমার দল, ম্যানেজমেন্ট, টুর্নামেন্টের কর্মকর্তা ও আয়োজক কমিটির কাছে মানবিক এই ভুলের জন্য ক্ষমা চাইছি। আশা করি, ভবিষ্যতে এমনকিছু আর কখনো করব না।’

শুক্রবার দুপুরে শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দলের লড়াইয়ে মেজাজ হারান সাকিব। এলবিডব্লিউর আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দেয়ায় লাথি দিয়ে স্টাম্প ভেঙে ক্ষোভ ঝাড়েন বাঁহাতি স্পিনার।

মিরপুরে বৃষ্টিতে খেলা বন্ধের আগে সাকিব হাত দিয়ে স্টাম্পও উপড়ে ফেলেন। আম্পায়ারের সঙ্গে বেশ বাকবিতণ্ডা হয় ওই সময়।

বিজ্ঞাপন

আবাহনীর কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন মেনে নিতে পারেননি সাকিবের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ। নিজেদের ডাগ আউটের সামনে থেকে এগিয়ে যান মোহামেডান ডাগ আউটের দিকে। সাদা-কালোদের সিনিয়র ক্রিকেটার শামসুর রহমান শুভ সুজনকে শান্ত করেন।

আবাহনী ইনিংসের পঞ্চম ওভারে মুশফিকুর রহিমের বিপক্ষে এলবিডব্লিউর আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার ইমরান পারভেজ। সঙ্গে সঙ্গেই লাথি মেরে স্টাম্প ভাঙেন সাকিব।

পরের ওভারেই শুভাগত হোমের বোলিংয়ের সময় বৃষ্টি নামলে আম্পায়ার খেলা বন্ধ করার ঘোষণা দিলে সাকিব নিজের হাতে স্টাম্প উপড়ে ফেলেন। বেশ কিছুক্ষণ উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয় সাকিব ও আম্পায়ারের মধ্যে। এরপর ড্রেসিংরুমে ফেরার পথে আবাহনীর কোচ খালেদ মাহমুদের সঙ্গে তর্কে জড়ান।

মাঠে সাকিবের আচরণবিধি ভঙ্গের প্রসঙ্গে ঢাকা লিগের আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান ও বিসিবি পরিচালক কাজী ইনাম আহমেদ জানান, ম্যাচ অফিসিয়ালদের রিপোর্ট দেখে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

বিজ্ঞাপন