চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিউজিল্যান্ডে ভয়ের নাম ‘নতুন বল’

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে কোনো সংস্করণেই এখনো জয়ের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। কিউই কন্ডিশনে এবার হারের বৃত্ত ভাঙার সুযোগ টাইগারদের সামনে। কী করলে সফরকারীরা পেতে পারে সাফল্য, সে ধারণা দিলেন জাতীয় দলের বাইরে থাকা নুরুল হাসান সোহান।

সোহানের ওয়ানডে ও টেস্ট অভিষেক হয়েছিল নিউজিল্যান্ডের মাটিতে। ব্যাট হাতে ভালো রানও আছে তার। সেইসঙ্গে টি-টুয়েন্টি খেলার অভিজ্ঞতা আছে উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের। সে অভিজ্ঞতা থেকেই জানালেন, ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশের সামনে কী কী চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘নতুন বলে নিউজিল্যান্ডের আবহাওয়া ও কন্ডিশনে খেলাটা আসলেই কঠিন। নতুন বলটা যদি পার করতে পারি, মানিয়ে নিতে পারি, ধরেন প্রথম ১০ ওভারে একটার বেশি উইকেট না দিই, তাহলে ব্যাটসম্যানদের জন্য রান করা অনেক সহজ হয়ে যাবে।’

বিজ্ঞাপন

‘আমার ওয়ানডে ও টেস্ট অভিষেক নিউজিল্যান্ডেই হয়েছিল। পুরাতন বলে ব্যাটিং করে মজা পাওয়া যায়। বলটা সুন্দর দেখা যায়। আমাদের দেশে যেমন বলটা পিচে পড়লে আমরা দোমনায় থাকি যে কী হবে। আমার কাছে মনে হয় ট্রু বাউন্স থাকে নিউজিল্যান্ডে। অবশ্যই রান করতে হলে কষ্ট করতে হবে।’

‘টেস্ট, টি-টুয়েন্টি বা ওয়ানডে, যাই বলেন নতুন বল খেলাটা চ্যালেঞ্জিং হবে আমাদের জন্য। শুরুতেই যদি উইকেট হারিয়ে ফেলি, ঐ জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়ানো কঠিন হয়ে যায়। তাই শুরুতে যদি কম উইকেট পড়ে, অর্থাৎ বেশি উইকেট হাতে রেখে যদি পরের দিকে যাই, তাহলে ব্যাটসম্যানরা শট খেলার সুযোগ পাবে।’

প্রাথমিক দলে নিয়মিত থাকলেও সোহানকে মূল স্কোয়াডে দেখা যায় না অনেকদিন ধরেই। ২০১৮ সালের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে খেলেছেন সবশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ। নিজেকে তৈরি রাখতে সুযোগের অপেক্ষায় থাকা এ ক্রিকেটার মিরপুরের একাডেমি মাঠে নিয়মিত চালিয়ে যাচ্ছেন অনুশীলন।

‘আমার কাছে মনে হয় সবার সুযোগ একরকম আসবে না। অনেক সময় আমি ভালো খেলেও দল থেকে বাদ পড়তে পারি টিম কম্বিনেশনের কারণে। এভাবেই মাথায় সেট করেছি। দলের জন্য যেটা ভালো হবে। অনেক সময়ই হয় ভালো খেলেও বাদ পড়তেছে। এটা টিম কম্বিনেশনের কারণে হতে পারে। আমার কাছে মনে হয় যদি দলের দরকার অনুযায়ী এরকম কোনো সুযোগ আসে আবার জাতীয় দলে খেলার, চেষ্টা করবো নিজের শতভাগ দেয়ার।’